কিষেণজির মৃত্যু দিবসে জঙ্গলমহলে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা

আমাদের ভারত, ঝাড়গ্রাম, ২৪ নভেম্বর: মাওবাদী সংগঠনের কেন্দ্রীয় সামরিক কমিশনের সদস্য কিষেণজির মৃত্যু দিবস উপলক্ষ্যে বুধবার বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রাম জেলায় পুলিশি নজরদারি ও নিরাপত্তার ব্যবস্থা বাড়ানো হয়েছে। সাম্প্রতিককালে জঙ্গলমহলের বিভিন্ন এলাকায় মাওবাদী পোস্টার পড়তে থাকায় যে কোনও ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশের পক্ষ থেকে বিশেষ নজরদারি চালানো হয়। ২০১১ সালের ২৪ নভেম্বর ঝাড়গ্রাম জেলার জামবনি ব্লকের বুড়িশোলের জঙ্গলে যৌথবাহিনীর সঙ্গেগুলি বিনিময়ের সময় এনকাউন্টারে মৃত্যু হয়েছিল সিপিআই মাওবাদী সংগঠনের পলিটব্যুরোর সদস্য কিষানজীর।

২০০৮ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত জঙ্গলমহলের ত্রাস ছিলেন তিনি। খুন অপহরণ ও নাশকতার সেই পর্বে বেলপাহাড়ি ও লালগড়ে তিনি গড়ে তোলেন পুলিশ সন্ত্রাসবিরোধী জনসাধারণের কমিটি। তারপর থেকেই শুরু হয় সশস্ত্র মাওবাদীদের রক্তক্ষয়ী অধ্যায়।
২০১১ সালের মে মাসে রাজ্যে ক্ষমতায় পরিবর্তন হওয়ার পর ২৪ নভেম্বর জামবনি থানা এলাকার বুড়িশোলের জঙ্গলে যৌথবাহিনীর সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে মাওবাদী শীর্ষ নেতা কিষেনজির মৃত্যু হয়।

তার মৃত্যুর পর মাওবাদী সংগঠনের পক্ষ থেকে জঙ্গলমহলে পোস্টার ব্যানার দিয়ে বারবার শীর্ষ নেতার মৃত্যুর বদলা নেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়েছে। দিন কয়েক আগে লালগড়ের এক আদিবাসী যুবকের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে দুটি তাজা ল্যান্ডমাইন। তাকে গ্রেপ্তারের পর মাওবাদীদের সঙ্গে তার যোগাযোগ রয়েছে বলে খবর পেয়েছে পুলিশ। তাই পুলিশের পক্ষ থেকে কিষেণজির মৃত্যু দিবসে কোনও রকম ঝুঁকি না নিয়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে জঙ্গলমহলজুড়ে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here