বাংলাদেশের পদাঙ্কই অনুসরণ করছে পশ্চিমবঙ্গ! মন্ডপে হামলা, বিসর্জনে বাধা, হিন্দুদের উৎসবে সুরক্ষা দিতে ব্যর্থ মুখ্যমন্ত্রী, অভিযোগ সুকান্ত মজুমদারের

শ্রীরূপা চক্রবর্তী,আমাদের ভারত, ১৭ অক্টোবর:পশ্চিমবঙ্গ সরকার বাংলাদেশের পদাঙ্ক অনুসরণ করছে। বাংলাদেশের পুলিশ প্রশাসনের সামনেই দুর্গাপুজোর মন্ডপ, প্রতিমা, মন্দির ভাঙ্গচুর, হিন্দুদের উপর হামলা করেছে কট্টরপন্থীরা। অথচ পুলিশ নিষ্ক্রিয়, নির্বিকার থেকেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একাধিক ভিডিওতে বাংলাদেশে আক্রান্তদের গলায় এই অভিযোগ শোনা গেছে। কিন্তু বাংলাদেশের মতো এই একই ঘটনা পশ্চিমবঙ্গেও ঘটেছে দুর্গাপুজোর সময়। আর সেই সব ঘটনা চোখের সামনে দেখেও বাংলাদেশের মতো রাজ্য প্রশাসন একেবারে নিষ্ক্রিয়। এমনটাই অভিযোগ বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের।

বিজেপির নেতাদের অভিযোগ বাংলাদেশ কট্টরপন্থীরা হিন্দুদের উপর যে হামলার চালিয়ে, যা নিয়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে, সেই একই ঘটনা ঘটেছে খোদ পশ্চিমবঙ্গেও। রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের কথায়, পশ্চিমবঙ্গের যে যে জায়গায় তথাকথিত সংখ্যালঘুরা বর্তমানে সংখ্যাগরিষ্ঠ হয়ে গেছে সেখানেই হিন্দুদের ধর্মীয় কর্মকাণ্ডে তারা আঘাত হেনেছে। তার উদাহরণ এগরা, করিমপুর, দুর্গাপুরের মতো বেশ কিছু জায়গা। রাজ্যে সংখ্যালঘুরা যেখানে আর সংখ্যায় কম নেই বরং তারা সংখ্যায় বেশি সেখানেই দুর্গাপুজোয় অশান্তির ছায়া দেখা গেছে। পশ্চিমবঙ্গেও বেশ কিছু মণ্ডপে হামলা চালানো হয়েছে, কোথাও বিসর্জনে বাধা দেওয়া হয়েছে, কোথাও বিসর্জনের সময় বোমাবাজি হয়েছে। কিন্তু সেইসব জায়গায় রাজ্য প্রশাসন সম্পূর্ণ নিষ্ক্রিয়তার ভূমিকা পালন করেছে। সুকান্ত মজুমদারের বক্তব্য, যেভাবে বাংলাদেশে হিন্দুদের উপর হামলার ঘটনায় সেখানকার প্রশাসন কোনো পদক্ষেপ করেনি, ঠিক সেই পদাঙ্ক অনুসরণ করে পশ্চিমবঙ্গেও প্রশাসন এই সব হামলার ঘটনায় নিষ্ক্রিয় থেকেছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ থেকে বহু কট্টরপন্থী পশ্চিমবঙ্গে এসে একের পর ধর্মীয় সভার আড়ালে সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক বক্তব্য রাখছে। প্রশাসনের তরফে সেবিষয়ে কোনও পদক্ষেপ করা হচ্ছে না।

দুর্গাপুরে বিসর্জন দিয়ে ফেরার পথে হামলার ঘটনার উল্লেখ করে সুকান্তবাবু টুইটারে লিখেছেন, বাংলাদেশের মতো পশ্চিমবঙ্গেও মানুষের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা অবহেলিত। বাংলাদেশে যা হয়েছে সেই পদাঙ্কই অনুসরণ করছে এই রাজ্য সরকারও। ওখানকার মতো এখানেও দুষ্কৃতীরা নির্ভয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে, তাদের আইনের কোনো ভয় নেই। তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, “কেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সব সময় হিন্দুদের উৎসবেই সুরক্ষা দিতে ব্যর্থ হয়?”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here