শান্তিনিকেতনে শিশুর দেহ উদ্ধারের ঘটনায় লকেটের পর সুকান্তকেও গ্রামে ঢুকতে বাধা, পরে শর্ত সাপেক্ষে অনুমতি

আমাদের ভারত, ২২ সেপ্টেম্বর: ৫ বছরের শিশুকে অপহরণ করে খুনের ঘটনায় বীরভূমের বোলপুরে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়েন বিজেপি রাজ্য সভাপতি। গ্রামবাসীদের বাধার মুখে পড়েন সুকান্ত ও তার সঙ্গে আসা অন্যান্য বিজেপি নেতারা। তবে শেষ পর্যন্ত সুকান্তদের গ্রামে ঢুকতে দিতে রাজি হয় গ্রামবাসীরা। তাদের শর্ত ছিল সবাই মিলে একসাথে নয়। ৪-৫ জনকে সঙ্গে নিয়ে নিহত শিশু পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে পারবেন তারা।

শিশুর দেহ উদ্ধার হওয়ার পর থেকেই অশান্ত শান্তিনিকেতনের মূলডাঙ্গা পাড়া। স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশের বিরুদ্ধে শিশু খুনের ঘটনায় মূল অভিযুক্ত রুবি বিবির বাড়িতে ভাঙ্গচুর চালিয়ে তা জ্বালিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। এই খবর পেয়েই পরিস্থিতি সামাল দিতে এলাকায় আসে বিশাল পুলিশবাহিনী। এখনো বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন রয়েছে সেখানে।

এরপর বিজেপি সাংসদ লকেট সেখানে যাওয়ায় তাকে ঘিরে বিক্ষোভ হয়। সেখানে শিবরামের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে পারেনি লাকেট। এরপরই বৃহস্পতিবার বেলার দিকে মোলডাঙ্গা পাড়ায় যান সুকান্ত। তাকেও বাধা দেওয়া হয়। বিজেপির অভিযোগ, সুকান্তকে বাধা দেওয়ার পিছনে তৃণমূলের হাত রয়েছে। বাধার মুখে পড়ে পুলিশের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়তে দেখা যায় বিজেপি কর্মীদের। এই ঘটনা ঘিরে উত্তপ্ত হয় পরিস্থিতি। সেই আবহে সুকান্তদের জানানো হয় বিজেপির পাঁচজন প্রতিনিধি গ্রামে গিয়ে নিহত শিশুর পরিবারের সঙ্গে কথা বলতে পারবেন। সেই মতই গ্রামের দিকে যান সুকান্ত। তিনি বলেন, “গ্রামবাসীদের কথামত আমরা পাঁচ থেকে ছয় জন যাব। আমাদের নিরাপত্তার ভয় নেই কিন্তু আমাদের নিরাপত্তার দায়িত্ব পুলিশের। আমরা জানতাম এরকম বিশৃঙ্খলা হবে।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here