সুপার সাইক্লোনে পরিণত হতে চলেছে আমফান! রাজ্যে জারি অরেঞ্জ এলার্ট, ব্যপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা, জরুরি বৈঠক মোদীর

আমাদের ভারত, ১৮ মে : ঘূর্ণিঝড় আমফান সুপার সাইক্লোনে পরিণত হতে চলেছে। তার জন্য রাজ্যে ইতিমধ্যেই জারি করা হয়েছে কমলা সর্তকতা। আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস পেয়ে যুদ্ধকালীন তৎপরতা শুরু হয়েছে সরকারের। পরিস্থিতি মোকাবেলায় রণকৌশল ঠিক করতে বৈঠকে বসেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বুধবার রাতে এই মহাশক্তিশালী ঝড় আছড়ে পড়ার পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। তবে ঝড়ের প্রভাবে মঙ্গলবার দুপুর থেকেই বৃষ্টি শুরু হবে রাজ্যের সাত জেলায়।

অমিত শাহ, টুইট করে জানিয়েছেন দেশের বিভিন্ন প্রান্তের ঘূর্ণিঝড় নিয়ে যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে তা পর্যালোচনার জন্য বিকেলে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সঙ্গে বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী। আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যে আমফান শক্তি বাড়িয়ে সুপার সাইক্লোনে পরিণত হতে চলেছে। গভীর সমুদ্রে এই ঝড়ের গতিবেগ ঘন্টায় সর্বোচ্চ ২৬৫ কিলোমিটার হতে পারে। উপকূলে আছড়ে পড়ার সময় শক্তি কিছুটা কমবে। ঘন্টায় সর্বোচ্চ ১৮৫ কিলোমিটার বেগে উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে আমফান।

জানা যাচ্ছে দীঘা এবং বাংলাদেশের হাতিয়ার মধ্যে যে কোন স্থলভাগে আছড়ে পড়তে পারে ঘূর্ণিঝড়। এরফলে সুন্দরবনের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে। উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ঝড়ের সর্বোচ্চ গতিবেগ হতে পারে ঘণ্টায় ১৮৫ কিলোমিটার।

ভয়াবহ ক্ষতির মুখে পড়তে পারে কলকাতাও। হাওড়া, হুগলি, পূর্ব মেদিনীপুর, কলকাতায় ঘন্টায় সর্বোচ্চ ১৫৫ কিলোমিটার বেগে ঝড় বইতে পারে। ঝড়ের কারণে দুই মেদিনীপুর, দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি, কলকাতায় ২০০ মিলিমিটার বৃষ্টি হতে পারে। উত্তরবঙ্গে অতি ভারী বর্ষণের সর্তকতা জারি করা হয়েছে।

বুধবার সন্ধ্যার দিকে আছড়ে পড়তে পারে এই ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়। এই মুহূর্তে দীঘা থেকে ৯৮০ কিলোমিটার এবং ওড়িশার পারাদ্বীপ থেকে ৪২০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে আমফান। আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ ও ওড়িশার উত্তর উপকূলবর্তী অঞ্চলের তান্ডব দেখাতে পারে এই ঝড় বলে আবহাওয়াবিদদের অনুমান। বুধবার ঝড় আছড়ে পড়লেও মঙ্গলবার দুপুর থেকে বৃষ্টি শুরু হবে কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের সাত জেলায়। মঙ্গলবার রাত থেকে বাড়বে বৃষ্টির পরিমাণ বাড়বে ঝড়ের গতিবেগও বলে খবর আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here