ট্রেন বাসের ভাড়া পরিযায়ী শ্রমিকদের কাছে নেওয়া যাবে না, নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

আমাদের ভারত, ২৮ মে: পরিযায়ী শ্রমিকদের খাওয়া থাকা, ঘরে ফেরার জন্য আর্থিক সবরকম ব্যবস্থার দাবিতে সুপ্রিম কোর্টের মামলা হয়েছিল। সেই মামলার শুনানি হয় বৃহস্পতিবার। এখনো পর্যন্ত পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সরকার তা আদালতে জানান সরকারপক্ষের আইনজীবী সলিসিটর জেনারেল তুশার মেহতা। তবে তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে সুপ্রিম কোর্ট। এরপর শুনানি শেষে বেশ কয়েকটি নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

শীর্ষ আদালতের নির্দেশ গুলি হল…

পরিযায়ী শ্রমিকদের কাছ থেকে বাস অথবা ট্রেনের ভাড়া নেওয়া যাবে না। সেক্ষেত্রে প্রতিটি রাজ্যকে রেলের ভাড়ার কিছুটা অংশ বহন করতে হবে।

বাস বা ট্রেনে ওঠা পর্যন্ত পরিযায়ী শ্রমিকদের থাকা এবং খাবারের ব্যবস্থা করতে হবে সংশ্লিষ্ট রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল গুলিকে।

ট্রেনে বা বাসে যাওয়ার সময় সংশ্লিষ্ট রাজ্যকেই খাবার ও পানীয় জলের ব্যবস্থা করতে হবে পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য।

ট্রেনে ও বাসেও তাদের খাবার জলের ব্যবস্থা করে দিতে হবে।

রাজ্যগুলিকে পরিযায়ী শ্রমিকদের নাম নথিভুক্ত করে দ্রুত তাদের বাড়ি ফেরানোর ব্যবস্থা করতে হবে।

যারা ইতিমধ্যেই হেঁটে বাড়ি ফিরছেন তাদের জন্য খাবার ও আশ্রয়ের ব্যবস্থা করতে হবে।

অন্যদিকে কেন্দ্র জানিয়েছিল,

কেন্দ্র সরকার ও রাজ্যগুলি যৌথ উদ্যোগে শ্রমিকদের বাড়ি ফেরানোর সমস্ত চেষ্টা চালানো হচ্ছে। তবে যে সমস্ত দুর্ঘটনা ঘটেছে তা বিচ্ছিন্ন ঘটনা।

প্রতিদিন ১৮৬ টি ট্রেনে লিখ ৮৫ হাজার শ্রমিককে ঘরে ফেরানো হচ্ছে। ইতিমধ্যে ৫০ লক্ষ শ্রমিক নিজের রাজ্যে ফিরে গেছেন। সড়কপথে ও প্রতিবেশী রাজ্যগুলি থেকে পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরানো হচ্ছে। প্রতিদিন গড়ে ৩ লক্ষ ৩৬ হাজার শ্রমিক সড়ক পথে নিজের রাজ্যে ফিরেছে। প্রাথমিকভাবে ফেরত পাঠানোর রাজ্য এবং গ্রহীতা রাজ্য রেলকে ভাড়া দিচ্ছে। পরে তা রেল শোধ করে দিচ্ছে। ট্রেনে ওঠার আগে প্রথম খাবার দিচ্ছে রাজ্য সরকার। ট্রেন ছাড়ার পর সব দায়িত্ব রেলের। কম দূরত্বে একবার এবং বেশি দূরত্বের বেলায় দুবার খাবার দিচ্ছে রেল। এখনো পর্যন্ত ৮৪ লক্ষ খাবার দেওয়া হয়েছে। বেশ কিছু ক্ষেত্রে ট্রেন ছাড়ার আগে কোয়ারিন্টিনেও রাখা হয়েছে পরিযায়ীদের।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here