চিনকে আর কোনো ভাবেই বিশ্বাস নয়! এলএসিতে মোতায়েন করা হল বিধ্বংসী ট্যাঙ্কার

আমাদের ভারত,২৭ সেপ্টেম্বর: এলএসি‌ সীমান্তে
আজ পাঁচ মাস ধরে লাগাতার চলছে অশান্তি। কোনো ভাবেই শান্তির রফা সূত্র বের হচ্ছে না। ফলত প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর শান্তি প্রক্রিয়া এখনও অধরা। দু’দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রীরা বৈঠকে বসেছিলেন, সামরিক কর্তারাও একাধিকবার আলোচনা করেছেন। কিন্তু সমাধান সূত্র বেরোয়নি। অথচ গত কয়েক মাসে বারবার ভারতীয় ভূখণ্ড অনুপ্রবেশের চেষ্টা করেছে চিন। ফলে তাদের আর বিশ্বাস করা সম্ভব নয়। তাই ভারতীয় সেনার তরফ স্পষ্ট জানানো হয়েছে যদি চিনা সেনা ভারতীয় ভূখণ্ডে ঢোকে তাহলে গোলাগুলি চলবে।

এবারের শীতেও পাহারায় থাকবেন ভারতীয় সেনা জওয়ানরা, আগেই তা জানানো হয়েছিল। শীতের প্রস্তুতিতে এখন থেকেই প্রয়োজনীয় সামগ্রী, খাবার মজুদ করতে শুরু করেছে সেনা। এবার প্রায় সাড়ে ১৪ হাজার ফুট উঁচুতে উঠে এসে একেবারে চিনা ফৌজের মুখের ওপর জবাব দিতে প্রস্তুত রয়েছে ভারতীয় সেনা।

ইতিমধ্যে লাদাকে পাহাড়ি এলাকায় নতুন বাঙ্কার বানানো শুরু করেছে ভারতীয় সেনা, চলছে ছাউনি মেরামতের কাজ। শীতের আগেই সব প্রস্তুতি সেরে ফেলা হচ্ছে। শনিবার লে থেকে ২০০ কিমি দূরে চুমার- ডেমচোক এলাকায় ভারতীয় সেনা বিধ্বংসী ট্যাঙ্ক মোতায়েন করেছে। ওই এলাকায় আগেই সেনা সংখ্যা বাড়ানো হয়েছিল। এবার যদি পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয় তাহলে মোকাবিলার জন্য ট্যাংক মোতায়েন করে দেওয়া হল।

টি-৯০, টি-৭২, বিএনপি টু ইনফ্যান্ট্রি কম্প্যাক্ট ভেহিকেল মোতায়েন করে ভারতীয় সেনা প্রস্তুতি রাখছে। মাইনাস ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রাতেও অপারেট করা সম্ভব এই ট্যাঙ্ক গুলি।

পূর্ব লাদাখে সবথেকে বেশি শীত পড়ে। এই এলাকায় শীতকালে কখনো রাতের তাপমাত্রা মাইনাস ৩৫ ডিগ্রী সেলসিয়াসে পৌঁছে যায়। বইতে থাকে হাড় কাঁপানো ঠান্ডা হাওয়া। তাই এই এলাকায় সেনার পক্ষে ভারী অস্ত্র নিয়ে পাহাড়া দেওয়া বড়সড় চ্যালেঞ্জ। আর সেই চিন্তা করেই সেনার চাপ কমাতে ট্যাঙ্ক মোতায়েন করা হয়েছে।

এর আগে ২৯-৩০ আগস্ট যখন চিনা সেনা সীমান্তে ট্যাঙ্ক নিয়ে এগিয়ে এসেছিল।তখন ক্ষণিকের মধ্যে ভারতের ট্যাঙ্কও জবাব দিতে হাজির হয়েছিলো। আর তাতেই পিছু হটে যায় চিনা সেনা বলে খবর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here