সরকারি লিখিত আশ্বাস পেলেই উঠবে কর্মবিরতি, ষষ্ঠ দিনেও দাবিতে অনড় এসবিএসটিসি’র অস্থায়ী কর্মীরা

সাথী দাস, পুরুলিয়া, ২৭ সেপ্টেম্বর: দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহন সংস্থার পুরুলিয়া ডিপোর অস্থায়ী কর্মীদের কর্মবিরতি ছয় দিন হল, মিলল না কোনও সরকারি লিখিত আশ্বাস। টানা ছয় দিন সরকারি বাস না চলায় দুর্ভোগে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। শুধু মাত্র কিছু বেসরকারি বাস চলাচল করছে। পুজোর সময় যাতায়াত ব্যবস্থা অচল থাকায় সমস্যায় পড়েছেন নিত্য যাত্রী থেকে শুরু করে ব্যবসায়ীরা। কারণ পুরুলিয়া থেকে দূরবর্তী জেলা ও শহরে একমাত্র সরকারি বাস পরিষেবার উপরই নির্ভরশীল যাত্রীরা। ট্রেন বা বেসরকারি বাস সরাসরি যাওয়ার কোনও উপায় নেই। আর এতেই ফাঁপরে পড়েছেন যাত্রীরা। দূর পাল্লার বাস একমাত্র দক্ষিণ বঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহন সংস্থারই চলাচল করে। সরকারি লিখিত আশ্বাস পেলেই উঠবে কর্মবিরতি।

ষষ্ঠ দিনেও নিজেদের দাবিতে অনড় থাকলেন এসবিএসটিসি’র অস্থায়ী কর্মীরা। সময়মতো বেতন ও মাসের ২৬ দিনের কাজ, সম কাজে সমবেতন, অস্থায়ী কর্মীদের স্থায়ীকরণ, গোটা রাজ্যে ৮৯ জন বরখাস্ত হওয়া কর্মীকে কাজে ফিরিয়ে নেওয়া, বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি, এছাড়াও জেলার সমস্ত রুটে পুনরায় বাস পরিষেবা চালুর দাবিতে এই কর্মবিরতি পালন করছেন কর্মীরা। এই দাবিগুলি নিয়ে কর্ম বিরতির ডাক দেয় দক্ষিণ বঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহন সংস্থার আইএনটিটিইউসি’র অনুমোদিত অস্থায়ী কর্মী সংগঠন। আজও কোনো সরকারি বাস পথে নামেনি। ফলে সমস্যায় পড়েছেন বহু যাত্রী।

কর্মবিরতিতে থাকা অস্থায়ী এক কর্মী বলেন, “১১ বছর ধরে অস্থায়ীভাবে কাজ করছি। অথচ, অনিশ্চয়তায় কাটাতে হচ্ছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে সম্মিলিতভাবে চিঠিতে অনুনয় বিনয় করেছি। সরকারের দৃষ্টি করেছি। শেষ পর্যন্ত কর্মবিরতিতে যেতে বাধ্য হয়েছি আমরা।”

অন্য এক কর্মী সাফ জানিয়ে দেন যে, “দাবি পূরণের লিখিত সরকারি আশ্বাস পেলেই কর্মবিরতি উঠে যাবে। এর আগে আশ্বাস পেয়েও কার্যত নিরাশ হতে হয়েছে আমাদের।”

আন্তঃজেলা পরিষেবায় এই মুহূর্তে পুরুলিয়া ডিপোর বাসের সংখ্যা ১২টি। গত দু মাস আগে এই ডিপো থেকে ৩০টি রুটে বাস চলাচল করতো। দু মাসে ১২টি পরিষেবায় নেমে এসেছে। এই ডিপোতে অস্থায়ী ড্রাইভার ও কন্ডাক্টার সংখ্যা ৮৪ জন। এই ডিপো থেকে ৩০টি রুটে বাস চলাচল করার কথা। যার মধ্যে জেলার মধ্যে ১০টি রুট ও ২০টি দূরপাল্লার বাস অন্যান্য জেলায় চলাচল করে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here