অগ্নিপথ প্রকল্পের বিরোধিতায় সকাল থেকে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ল ব্যারাকপুরে

আমাদের ভারত, ব্যারাকপুর, ২০ জুন: সকাল থেকেই অগ্নিপথ প্রকল্পের বিরোধিতায় পথে নামলো সেনা বাহিনীর চাকরি প্রার্থীরা। যার জেরে উত্তাল হয়ে ওঠে ব্যারাকপুর।

কেন্দ্র সরকারের অগ্নিপথ নীতির বিরোধিতায় চাকরি প্রার্থীরা আজ সকালে টিটাগড় থেকে বিশাল মিছিল করে ব্যারাকপুর চিড়িয়া মোড়ে আসে। তারা আদের দাবিগুলি ও তাদের প্রতিবাদ লিপি ব্যারাকপুর ক্যান্টনমেন্টে সেনা দপ্তরে জমা দিতে চান। তখন তাদের পথ আটকায় ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের পুলিশ। ফলে গন্ডগোলের সৃষ্টি হয়। উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে ব্যারাকপুরে চিরিয়ামোরে। আজ এই মিছিল আসার খবর হতেই বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয় ব্যারাকপুরে। বিক্ষোভকারীরা পুলিশের বাধা পেয়ে রাস্তার ওপর বসে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। যার জেরে যানজটের সৃষ্টি হয়। এরপর ওই বিক্ষোভকারীদের মধ্যে ২ জনের একটি প্রতিনিধি দল পুলিশের সম্মতি নিয়ে দৌড়তে দৌড়তে ব্যারাকপুরে সেনা বাহিনীর দপ্তরে যায় এবং সেখানে গিয়ে সেনা আধিকারিকদের হাতে তাদের প্রতিবাদ লিপি তুলে দেন।

এই বিষয়ে ওই দুই প্রতিনিধি বলেন, “আমরা শান্তিপূর্ণ ভাবে সেনা দপ্তরে গিয়েছিলাম। সেখানে অগ্নিপথ নিয়ে আমাদের প্রতিবাদ লিপি আমরা জমা দিয়ে এসেছি। এই বিষয়ে সেনা আধিকারিকরাও আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন যে তারা আমাদের দাবি ও প্রতিবাদ কেন্দ্রের কাছে পৌঁছে দেবেন।”

অপর দিকে অগ্নিপথের বিরোধিতা করে সকাল থেকেই সেনাবাহিনীতে চাকরি করতে চাওয়া যে যুবকরা পথে নেমেছিল তারাই আবার ব্যারাকপুর স্টেশনে বিক্ষোভ দেখাতে যায়। আর ওই যুবকরা আজ ব্যারাকপুর রেল স্টেশনে বিক্ষোভ অবরোধ করবার উদ্যেশ্যে মিছিল করলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে ব্যারাকপুরে স্টেশন চত্বরে। এদিন বিক্ষোভকারীরা অগ্নিপথের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ দেখাতে ব্যারাকপুর স্টেশনে গেলে সেখানে প্রবেশ করতে বাধা দেয় রেল পুলিশ। যার জেরে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে স্টেশন চত্বরে। বিক্ষোভকারীদের বক্তব্য, ৪ বছরের জন্য সেনাবাহিনীতে চাকরির যে নিয়ম করা হয়েছে তা প্রত্যাহার করতে হবে। এদিন বিক্ষোভকারীরা বলেন,”মাত্র ৪ বছরে জন্যে সেনা বাহিনীর চাকরি করে কি হবে? তারপর আমরা কি করবো? কোথায় অন্য চাকরি পাবো?”

এদিন ব্যারাকপুরে যাতে কোনো রেল অবরোধ না হয় তার জন্য রেল পুলিশ বিক্ষোকারীদের জোর করে স্টেশন চত্বর থেকে সরিয়ে দেয়।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here