হায়দ্রাবাদের দোকান থেকে সোনা নিয়ে পালিয়ে আসায় গ্রেফতার আমতার যুবক

আমাদের ভারত, হাওড়, ২১ অক্টোবর: হায়দ্রাবাদের এক সোনার দোকান থেকে প্রায় ১ কেজি ৭৫০ গ্রাম সোনা নিয়ে পালিয়ে আসার অভিযোগ উঠল আমতার রানাপাড়ার বাসিন্দা অনিল সামন্তর বিরুদ্ধে। সোনার দোকানের মালিকের অভিযোগের ভিত্তিতে বুধবার রাতে আমতা থানার পুলিশ অনিলকে গ্রেফতার করে। ধৃতকে বৃহস্পতিবার উলুবেড়িয়া আদালতে তোলা হলে বিচারক তাকে ৩ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন।

জানা গিয়েছে, বছর ছত্রিশের অনিল প্রায় ১৭ বছর ধরে হায়দ্রাবাদের চারমিনার এলাকায় সোনার কাজ করে। ওই এলাকারই এক সোনার দোকানের মালিক প্রদীপ মিশ্রের কাছ থেকে অর্ডার নিয়ে এসে গয়না তৈরি করার কাজ করে অনিল। বিভিন্ন সময়ে সে সোনা নিয়ে আসে এবং গয়না তৈরি করে দোকানে দিয়ে আসে। দোকান থেকে কখনো তাকে ২০০ কখনো ২৫০ গ্রাম সোনা দেওয়া হতো। মাস তিনেক ধরে দোকানের অর্ডার একটু বেশি পড়ায়  দোকানের মালিক ধাপে ধাপে তাকে ১ কেজি ৭৫০ গ্রাম সোনা দেয় গয়না বানানোর জন্য। অভিযোগ, অনিল সময় মত গয়না তৈরি করে তা ফেরত দেয়নি। উল্টে মাস দুয়েক আগে বাড়ি চলে আসে সেই সোনা নিয়ে। শেষমেশ সোনার দোকানের মালিক আমতায় অনিলের বাড়িতে আসার পরিকল্পনা করে। বুধবার তারা আমতায় আসেন। ওইদিনই তারা আমতা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ রাতেই অনিলের বাড়িতে তল্লাশি চালায়। তার কাছ থেকে ১ কেজি সোনা উদ্ধার করে এবং সাড়ে ৭ লক্ষ টাকাও উদ্ধার করেছে। পুলিশ মনে করছে অনিল ৭৫০ গ্রাম সোনা বিক্রি করেছে উলুবেড়িয়া, আমতা সহ বিভিন্ন এলাকায়। সোনা বিক্রি করে সে ওই টাকা পেয়েছে। 

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here