রাজ্যে করোনা আক্রান্ত ৬১ হলেও মৃত ৩ জনই, স্বাস্থ্য দফতরের প্রশংসায় পঞ্চমুখ মুখ্যমন্ত্রী

সৌভিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা, ৬ এপ্রিল: সারা দেশের মধ্যে একমাত্র পশ্চিমবঙ্গই সফল ভাবে করোনা সংক্রমণ রুখে দিতে পেরেছে। এখানে মানুষের সুস্থ হওয়ার হারও অনেক বেশি। এমনকি লকডাউন পালন করার নিরিখেও মডেল এ রাজ্য। বারেবারেই এমন দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাই ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪৯ থেকে বেড়ে ৬১ জন হলেও মৃত্যুর সংখ্যা বাড়েনি বলেই দাবি নবান্নের।

সোমবার বিকেলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাংবাদিক বৈঠক করে জানান, রাজ্যে এই মুহূর্তে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৬১। এখনও পর্যন্ত মারা গিয়েছেন তিন জন। যাঁরা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁদের মধ্যে ৫৫ জন ৭টি পরিবারের বলে জানান তিনি। কালিম্পঙে মৃত এক মহিলা-সহ ওই পরিবারের মোট ১১ জন করোনায় আক্রান্ত। আলিপুর কমান্ড হাসপাতালের চিকিৎসক-সহ ওই পরিবারের মোট ৫ জন করোনা পজিটিভ। এছাড়া, হলদিয়ায় একই পরিবারের ২ জন, এগরার ১২ জন, তেহট্টের ৫ জন এবং হাওড়ার ৮ জন করোনায় আক্রান্ত বলে জানিয়েছেন তিনি। বাইরে থেকে নিয়ে এসে নিজস্ব পরিবারের মধ্যেই সংক্রমণ ঘটিয়েছেন এরা। ফলে এ রাজ্যে এখনো কোনো গোষ্ঠী সংক্রমনের খবর নেই স্বাস্থ্য দফতর ভালো কাজ করছে। এখনও পর্যন্ত ১৩ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

তবে করনা আবহেও বিরোধী রাজনৈতিক দলকে বিদ্ধ করতে ছাড়েননি মুখ্যমন্ত্রী। এ দিন তিনি অভিযোগ করেছেন, করোনা আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ে ভুয়ো খবর ছড়ানো হচ্ছে। তাঁর দাবি, কিছু রাজনৈতিক দলের আইটি সেল স্বাস্থ্য ভবনের বুলেটিন বলে ভুয়ো খবর ছড়াচ্ছে। এ নিয়ে পুলিশ কিন্তু কড়া ব্যবস্থা নেবে।

করোনা মোকাবিলায় ‘গ্লোবাল অ্যাডভাইসরি বোর্ড ফর কোভিড রেসপন্স পলিসি ইন ওয়েস্ট বেঙ্গল’ গঠনের কথা এ দিন ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ওই বোর্ডে থাকবেন, নোবেলজয়ী বাঙালি অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রাক্তন আঞ্চলিক অধিকর্তা স্বরূপ সরকার। এঁদের সঙ্গে সমন্বয় রক্ষা করবেন চিকিৎসক অভিজিৎ চৌধুরী এবং সুকুমার মুখোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই করোনা মোকাবিলায় সরকারি এবং বেসরকারি হাসপাতাল গুলিকে ৩৪ দফা তথ্য পূরণের নির্দেশ দিয়েছেন স্বাস্থ্য দফতর। একজন মৃত রোগীর সমস্ত তথ্য এভাবে পূরণ করা কার্যত হাসপাতালের পক্ষে অসম্ভব বলেই মত একশ্রেণীর চিকিৎসকদের। তারপর তা এক্সপার্ট কমিটি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেবে। ফলে আদৌ রাজ্যের প্রকৃত করোনা পরিস্থিতি জানা যাবে কি না, সেই নিয়েই সংশয় তৈরি হয়েছে চিকিৎসক মহলে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here