রাস্তায় পড়ে মরতে হচ্ছে মানুষকে! করোনা পরিষেবা নিয়ে বাস্তবের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যের মিল নেই: অধীর

রাজেন রায়, কলকাতা, ২১ জুলাই: করোনা পরিষেবা নিয়ে বাস্তবের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যের মিল নেই। রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবা ভালো দেখাতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী তথ্য নিয়ে লুকোচুরি খেলছেন। লুকোচুরি বন্ধ করে সাধারণ মানুষকে করোনা পরিষেবা দিন। এইভাবে এবার তোপ দাগলেন লোকসভার বিরোধী দলনেতা কংগ্রেস সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরী।

রাজ্য জুড়ে প্রত্যেকদিন বিপুল হারে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। কিন্তু আক্রান্ত হয়েও কোভিড পরিষেবা নিয়ে ঠিকঠাক তথ্য না থাকায় হয়রানি বাড়ছে মানুষের।
এমনকি বিনা চিকিৎসায় মারা যাচ্ছেন বহু মানুষ। কোন হাসপাতালে কত শয্যা রয়েছে, কোথায় কি পরিষেবা পাওয়া যাবে, সাধারণ মানুষের কাছেও সঠিক তথ্য নেই। আর সে কারণেই সাধারণ মানুষের এই দুর্ভোগের কথা জানিয়েই ক্ষোভ প্রকাশ করলেন অধীর চৌধুরী। এক সাক্ষাৎকারে বর্তমান পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকারের ভূমিকা নিয়ে ক্ষোভ উগরে দেন বহরমপুরের কংগ্রেস সাংসদ। তিনি বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী সাধারণ মানুষের কাছে করোনা সংক্রান্ত সঠিক পরিষেবা পৌঁছে দিন। করোনা নিয়ে লুকোচুরি করা বন্ধ করুন। সত্যকে সত্য বলার চেষ্টা করুন।’

তিনি বলেন, ‘করোনা মোকাবিলা করতে স্বাস্থ্য পরিকাঠামোকে সুদৃঢ় করার কথা ছিল। কিন্তু স্বাস্থ্য পরিকাঠামো যেখানে যা ছিল, সেখানেই আছে। উলটে বড় বড় চিকিৎসক পর্যন্ত আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছেন। মানুষের কাছে কোনো খবর নেই, করোনা হলে কোথায় যেতে হবে বা ফোন নাম্বার কি আছে, কাকে বলতে হবে, অ্যাম্বুল্যান্স কোথায় পাওয়া যাবে। অন্যদিকে বেসরকারি হাসপাতালগুলিতে অতিরিক্ত পরিষেবা মূল্যের কারণে সাধারণ মানুষের যাবার উপায় নেই। ফলে হাসপাতালের বেড খালি আর রাস্তায় পড়ে মরতে হচ্ছে মানুষকে।”

অধীরের দাবি, “মুখ্যমন্ত্রী বলছেন, মানুষ সহযোগিতা না করলে কি করে কি করবো? এদিকে সব জায়গায় মানুষ সহযোগিতা করতে চায়। যত স্টেডিয়াম, অনুষ্ঠান বাড়ি, স্কুল-কলেজ সমস্ত কিছুকে কোয়ারেন্টাইন করুন। মুখ্য সচিব বলছেন, করোনা নিয়ন্ত্রণে আছে, বেডের অভাব নেই। মানুষ বলছে, কোনও কিছুই নাই। কোনটা ঠিক কোনটা বেঠিক বোঝা যাচ্ছে না। সরকারকে সাধারণ মানুষের স্বার্থে আরও বেশি স্বচ্ছ দায়িত্ব পালন করতে হবে। তথ্যের লুকোচুরি থাকলে চলবে না।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here