মোবাইলে হারিয়ে যাচ্ছে শিশুর শৈশব তাই কৃষ্ণগঞ্জের মাজদিয়ায় তাদের কথা ভেবে তৈরি হল পাঠাগার

স্নেহাশীষ মুখার্জি, আমাদের ভারত, নদীয়া, ১৬ অক্টোবর:
মোবাইলের যুগে হারিয়ে যাচ্ছে ছোটদের শৈশব। খেলাধুলা, বইপড়া সবকিছু ভুলে অধিকাংশ শিশুর শৈশব পুরোপুরি মোবাইলের মধ্যে আবদ্ধ হয়ে যাচ্ছে। তাদের কথা ভেবে বৃহস্পতিবার নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের মাজদিয়া টুঙ্গি পল্লীসমাজের উদ্যোগে শিশুদের বই পড়ার জন্য তৈরি হল পাঠাগার। এতে খুশি এলাকার সাধারণ গ্রামবাসী থেকে শুরু করে খুদে পড়ুয়ারাও।

স্থানীয় যুবক সৌম্য গুঁই জানান, বেশকিছুদিন ধরেই চিন্তা ভাবনা ছিল। এলাকায় একটি লাইব্রেরি করার। কেন না, মোবাইলের যুগে হারিয়ে যাচ্ছিল ছোট্ট শৈশব। খেলাধুলা পড়াশোনা থেকে বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে মোবাইল। এই মোবাইলের মধ্যে সারাক্ষণই আবদ্ধ হয়ে যাচ্ছে ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা। তিনি বলেন, ওরা জানেনা ঠাকুরমার ঝুলি, নন্টে ফন্টে, চেনে না সত্যজিৎ রায়, লীলা মজুমদার। ওদের কাছে এগুলোকে ফিরিয়ে আনার জন্যই আমাদের এই উদ্যোগ। তিনি বলেন,এই পাঠাগার খুলতে বইপত্রের জন্য বন্ধুবান্ধব, শুভাকাঙ্ক্ষীদের কাছে আমরা আবেদন করেছিলাম। সকলেই আমাদেরকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন, কেউ ফেরাননি।

ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র সুদীপ্ত রক্ষিত জানায়, গ্রামে এতদিন কোনও লাইব্রেরি ছিল না। বই পড়ার খুবই অসুবিধা ছিল। তাই সারাক্ষণই মোবাইল আর টিভি দেখতাম। কিন্তু এখন লাইব্রেরি হওয়ায় খুবই ভালো লাগছে। স্থানীয় বাসিন্দা সাধন প্রামানিক বলেন, আমার খুবই ভালো লাগছে। গর্ব হচ্ছে, কারন এই গ্রামেই আমার জন্ম। এধরনের একটি লাইব্রেরি হওয়ায় আমি গর্বিত। এই লাইব্রেরিতে কচিকাঁচাদের জন্য বই তুলে দিতে পেরে খুশি।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here