জেলা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেই করতে হবে বিশ্বভারতীর নির্মাণ কাজ, হাইকোর্টের প্রতিনিধিদের সঙ্গে উপাচার্যের বৈঠকের পর সিদ্ধান্ত

আশিস মণ্ডল, শান্তিনিকেতন, ২০ সেপ্টেম্বর: জেলা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেই বিশ্বভারতীতে নির্মাণ কাজ করতে হবে। হাইকোর্টের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বিশ্বভারতীর উপাচার্যের বৈঠকের পর যৌথ বিবৃতিতে একথা জানানো হয়েছে।

পৌষ মেলা মাঠের প্রাচীর নির্মাণকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার বাধে শান্তিনিকেতনে। থানার সামনে মেলার মাঠে প্রাচীর নির্মাণের জন্য রাখা সরঞ্জাম চুরি করে নিয়ে যায় আন্দোলনকারীরা। ভেঙ্গে ফেলা হয় অস্থায়ী ম্যারাপ এবং প্রাচীন গেট। অভিযোগ, বিশ্বভারতী এক তরফা সিদ্ধান্ত নিয়ে মেলার মাঠ ঘিরে ফেলছে। এর ফলে রবীন্দ্র ভারতীর ঐতিহ্য নষ্ট হচ্ছে। এর প্রতিবাদে হাইকোর্টে মামলা করা হয়। সেই মামলার রায়ে আগেই বিশ্বভারতীর নির্মাণ কাজ বন্ধের নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।

এবার চার সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে দেয়। কমিটিতে রয়েছেন বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়, অরিজিত বন্দ্যোপাধ্যায়, অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল ওয়াই জে দস্তুর এবং রাজ্যের এডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত। এই প্রতিনিধি দল রবিবার সকালে তদন্তে আসেন বিশ্বভারতীতে। সঙ্গে ছিলেন বীরভূমের জেলা শাসক মৌমিতা গোদারা, জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং। তারা প্রথমে মেলার মাঠ পরিদর্শন করেন। এরপর বিশ্বভারতীর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দু’ঘন্টা বৈঠক করেন। পরে ফের মেলার মাঠ পরিদর্শন করেন।

বৈঠকের পর যৌথ বিবৃতিতে জানানো হয়, বিশ্বভারতী নির্মাণের ক্ষেত্রে জেলা প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করে কাজ করবে। এরপর আশ্রমিক, ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলোচনা করবে। তবে এই মুহূর্তে কমিটির নির্দেশ ছাড়া কোনও কাজ করা যাবে না বলে পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন প্রতিনিধ দল।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here