পশ্চিমবঙ্গ দিবসে হিন্দু সংহতির মহামিছিল কলকাতায়

আমাদের ভারত, ২০ জুন: হিন্দু সংহতির উদ্যোগে কলকাতার বুকে পশ্চিমবঙ্গ দিবস উপলক্ষে এক বিরাট মহামিছিল হল আজ। এই মিছিলে হিন্দু সংহতির সভাপতি দেবতনু ভট্টাচার্য সহ সংগঠনের নেতাকর্মীরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন। সোমবার দুপুরে আমহার্স্ট স্ট্রিটের শ্রদ্ধানন্দ পার্ক থেকে এই মিছিল শুরু হয়। রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীও এই মিছিলে পা মেলান।

মিছিলে অংশ নিয়ে হিন্দু সংহতির সভাপতি দেবতনু ভট্টাচার্য বলেন, “হিন্দু সংহতির উদ্যোগে এই পশ্চিমবঙ্গ দিবসের স্লোগান, আর পলায়ন নয় পরাক্রম।” তাঁর কথায় পশ্চিমবঙ্গের মাটিকে যদি বাঁচাতে হয় তাহলে আর পলায়ন করা যাবে না, বরং পাল্টা পরাক্রম দেখাতে হবে। তাঁর দাবি, “সরকার পুলিশ যদি হিন্দুদের বাঁচানোর জন্য কোনো পদক্ষেপ না করে, হিন্দুদের নিজেদের বাঁচানোর জন্য যা করার তাই করতে হবে। প্রয়োজনে অস্ত্র ধরতে হবে।” অভিযোগের সুরে দেবতনু ভট্টাচার্য বলেন, “কয়েকদিন আগেই পশ্চিমবাংলায় জেহাদী তাণ্ডব দেখেছেন আপনারা। সেটা কোনো ভাবেই সহ্য করা যাবে না।”

হিন্দু সংহতির সভাপতি বলেন, “যখন পশ্চিমবঙ্গ গঠন হয়েছিল তখন মূল বিষয় ছিল আমরা পাকিস্তানের সঙ্গে যেতে চাই না। সেই জন্যই আলাদা করে একটি রাজ্য চেয়েছিলাম। সেই জন্যেই পশ্চিমবঙ্গ তৈরি হয়েছিল। সেই পশ্চিমবঙ্গ এখন আবার পাকিস্তান তৈরির দোরগোড়ায়। তাই পরাক্রমের সাথে আমাদের এর মোকাবিলা করতে হবে।”

সিএএ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমরা সিএএ চাই। এর জন্য আমরা অনেক আন্দোলন করেছি। সিএএ জাতে কার্যকর হয় তার জন্য আমরা আগামীদিনেও মাঠে নেমে লড়াই করব”

বেশ কিছুদিন আগে থেকেই এই মহা মিছিলের উদ্যোগ নিতে শুরু করেছিল হিন্দু সংহতি। মিছিলে যোগ দেওয়ার জন্য আবেদন প্রচার শুরু করেছিল তারা। প্রচারপত্রে বলা হয়েছিল ২০ জুন পশ্চিমবঙ্গের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা দিবস। ১৯৪৭ সালের এদিনে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের জন্ম হয়। হিন্দু সংহতি দিনটিকে পশ্চিমবঙ্গ দিবস হিসেবে উদযাপন করে। ওইদিন কলকাতায় একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার আয়োজন হয়েছে তাতে যোগ দিন। সংগঠনের তরফে বলা হয়েছিল, “আমরা পাকিস্তানের অন্তর্ভুক্ত হতে চাইনি। তাই পাকিস্তানকে ভেঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ তৈরি করেছিলাম। এই পশ্চিমবঙ্গ যেন আবার পাকিস্তানে পরিণত না হয় তা সুনিশ্চিত করার দায়িত্ব এই প্রজন্মের।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here