এখনও পরিযায়ী পাখির দল না আসায় হতাশ রায়গঞ্জের পক্ষী প্রেমীরা

এখনও পরিযায়ী পাখির দল না আসায় হতাশ রায়গঞ্জের পক্ষী প্রেমীরা

আমাদের ভারত, উত্তর দিনাজপুর, ৬ জুন: এশিয়ার বৃহত্তম পক্ষীনিবাস রায়গঞ্জ কুলিক পক্ষীনিবাসে এখনও পর্যন্ত পরিযায়ী পাখির দেখা না মেলায় কপালে চিন্তার ভাঁজ উত্তর দিনাজপুর জেলা বন দপ্তরের। পাশাপাশি উদ্বিগ্ন রায়গঞ্জের পরিবেশপ্রেমী মানুষেরাও। পাখি দেখতে না পেয়ে হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছেন পর্যটকেরা।

প্রতি বছরই রায়গঞ্জ কুলিক অরণ্যের কুলিক পক্ষীনিবাসে ভিন দেশ থেকে হাজার হাজার পরিযায়ী পাখি ভিড় জমায়। এখানে এসে তারা বাসা বাঁধে, প্রজননের মাধ্যমে শাবকের জন্ম দেয়। পক্ষীশাবকদের বড় করে তোলে। পক্ষীশাবকরা উড়তে শিখে গেলে তারা আবার ফিরে যায় যেখান থেকে তারা আসে।
দীর্ঘ ছ’মাস ধরে রায়গঞ্জ কুলিক পক্ষীনিবাসে পরিযায়ী পাখিদের কলা কৌশল দেখতে এবং পাখিদের কলতানে মুখরিত এই কুলিক পক্ষীনিবাসের অপরূপ শোভা দেখতে হাজার হাজার পর্যটক ভীড় করেন রায়গঞ্জে। কিন্তু এবার মে মাস পার হয়ে গেলেও এখনও দেখা মেলেনি নাইট হেরন, ওপেন বিল স্টক, করমোরেন্ট ও ইগ্রেট এই চার প্রজাতির পরিযায়ী পাখির। এই পরিযায়ী পাখি ও তাদের ঘিরে কুলিক বনাঞ্চল এইসময় রায়গঞ্জের অন্যতম আকর্ষণ এবার এখনও অধরা।

জেলা বনদপ্তরের দাবি, এবার এখনও বর্ষা আসেনি, তাই পরিযায়ী পাখি আসা শুরু হয়নি। তবে দিন পনেরোর মধ্যেই বর্ষা শুরু হলেই পরিযায়ী পাখির দল এসে ভীড় জমাবে রায়গঞ্জ কুলিক বনাঞ্চলে। জেলা বনদপ্তরের বিভাগীয় বন আধিকারিক দ্বীপর্ণ দত্ত বলেন, মে মাসের মাঝামাঝি সময়ে পরিযায়ী পাখির দল চলে আসে, তবে এবার বর্ষা শুরু না হওয়ায় তাদের আসা শুরু হয়নি। কুলিক পক্ষীনিবাসে পরিযায়ী পাখিদের আসার সবরকম ব্যাবস্থা করে রাখা হয়েছে।

অপরদিকে রায়গঞ্জের পরিবেশপ্রেমীরাও পরিযায়ী পাখির দল এখনও না আসায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। প্রচন্ড গরম পড়েছে এবং আবহাওয়া পরিবর্তন হওয়ার কারনেই পরিযায়ী পাখির আসতে দেরী হচ্ছে। এছাড়াও দূষণের প্রভাবও পড়েছে কুলিক বনাঞ্চল এলাকাতে। পরিযায়ী পাখিরা সংশ্লিষ্ট এলাকায় যেসব জলাশয়গুলি থেকে তাদের খাদ্য সংগ্রহ করে সেগুলি অবৈধভাবে বন্ধ করে দেওয়ায় পরিযায়ী পাখিদের খাদ্যসংকট এর অন্যতম একটি কারন বলে মনে করছেন পরিবেশপ্রেমীরা।

জেলা বনদপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, ভিয়েতনাম, মায়ানমার ও সাইবেরিয়া সহ বিভিন্ন দেশ থেকে প্রায় এক লক্ষের মতো পরিযায়ী পাখির দল এসে ভীর জমায় এশিয়ার বৃহত্তম রায়গঞ্জ কুলিক পক্ষীনিবাসে। এইসব পরিযায়ী পাখিদের দেখতে প্রচুর পর্যটক ভীড় করে রায়গঞ্জ কুলিক পক্ষীনিবাসে। এবার শুরুতেই কিছুটা হলেও পাখি দেখতে না পেয়ে হতাশ পর্যটকরা। এবছর পর্যটকদের কাছে এই কুলিক পক্ষীনিবাসকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে বেশ কিছু উদ্যোগও নিয়েছে জেলা বন বিভাগ। বনবিভাগের কর্মী থেকে রায়গঞ্জের মানুষের আশা খুব শীঘ্রই পরিযায়ী পাখির দল এসে মুখরিত করে তুলবে রায়গঞ্জ কুলিক পক্ষীনিবাস।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nine − three =