ইছাপুরে স্বামী বিবেকানন্দের মূর্তি ভাঙ্গার চেষ্টা দুষ্কৃতীদের, ধৃত ১

আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ২৬ সেপ্টেম্বর: বিদ্যাসাগরের ২০০ তম বছরের জন্মদিবস যখন বাংলাজুড়ে পালিত হচ্ছে, তখন উত্তর ২৪ পরগনার ইছাপুর কদমতলা এলাকায় দুষ্কৃতীরা স্বামী বিবেকানন্দের মূর্তি ভাঙ্গার চেষ্টা করল। ইছাপুর কদমতলা মোড়ে উত্তর ব্যারাকপুর পুরসভার পক্ষ থেকে চলতি বছরের ১৮ মার্চ স্বামী বিবেকানন্দের একটি পূর্ণাবয়ব আবক্ষ মূর্তি স্থাপিত হয়েছিল। উত্তর ব্যারাকপুর পুরসভার বর্তমান পৌর প্রশাসক মলয় ঘোষ এই মূর্তিটি স্থাপন করেছিলেন। সেই মূর্তিটি রাতের অন্ধকারে ভাঙ্গার চেষ্টা করেছে দুষ্কৃতীরা। মূর্তির বাইরের কাঁচের বাক্সটি দুষ্কৃতী হামলায় ভেঙ্গে গিয়েছে।

জানাগেছে, গভীর রাতে তিনজন দুষ্কৃতী এই মূর্তি ভাঙ্গার চেষ্টা করেছে। স্থানীয় একটি দোকানের সিসিটিভি ফুটেজে সেই ছবি ধরা পড়েছে। নোয়াপাড়া থানার পুলিশ এই ঘটনার তদন্তে নেমে ওই ফুটেজ সংগ্রহ করে ইতিমধ্যেই এক কুখ্যাত দুষ্কৃতিকে গ্রেপ্তার করেছে।

এই ঘটনায় ব্যপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে ইছাপুর কদমতলা এলাকায়। পুলিশ এই ঘটনায় অন্য দুই অভিযুক্তের খোঁজ শুরু করেছে। এদিকে নোয়াপাড়া শহর তৃণমূল কংগ্রেস ও নোয়াপাড়া শহর তৃণমূল যুব কংগ্রেস এই ঘটনার পর কদমতলা এলাকায় দলীয় কর্মীদের নিয়ে জড়ো হয়ে এই ঘটনার প্রতিবাদ জানায়।

নোয়াপাড়া শহর তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি প্রসূন সরকার বলেন, “এই মূর্তি আমাদের তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত পুরসভা প্রতিষ্ঠা করেছিল। সেই মূর্তি বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা ভেঙ্গে ফেলার চেষ্টা করেছে। মূর্তির বাইরে মোটা কাঁচের আস্তরণ থাকায় মূর্তিটি রক্ষা পেলেও কাঁচের আস্তরণটি ভেঙ্গে যায়। বিজেপি অশিক্ষিত মূর্খের দল, বাংলার মনীষীদের কোনও গুরুত্ব ওদের কাছে নেই। এর পিছনে বড় কোনও মাথা জড়িত আছে। আমরা এই ঘটনার মূল মাথার গ্রেপ্তারি চাই। পুলিশকে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি আমরা। পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করেছে ঠিকই, বাকিদেরও শনাক্ত করা হয়েছে। তারাও ধরা পড়বে। এই বিষয় নিয়ে আমরা বিজেপির বিরুদ্ধে আগামীদিনে নোয়াপাড়া এলাকাজুড়ে আন্দোলনে নামব ।”

এদিকে এই ঘটনায় বিজেপির কেউ জড়িত নয় বলে দাবি করেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। বিজেপির বক্তব্য, রাতের অন্ধকারে কোনও দুষ্কৃতীরা এই হামলা করেছে তা পুলিশ খুঁজে বের করুক। বিজেপির ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে দেওয়া ওদের স্বভাব।

বিজেপির ব্যারাকপুর জেলা সাংগঠনিক সভাপতি উমা শঙ্কর সিং বলেন, “বিজেপি কর্মীরা রক্ত দিয়ে হলেও বিবেকানন্দকে রক্ষা করবে। বিজেপির কোনও কর্মী বিবেকানন্দের মূর্তি ভাঙ্গতে পারে না। বিবেকানন্দের আদর্শে বিশ্বাসী বিজেপির প্রতিটি কর্মী। বিবেকানন্দকে যদি কাদায় রাখা হয়, আমরা তার পাশে দাঁড়াব, বিবেকানন্দকে বুকে আগলে রাখি আমরা। বিজেপির বিরুদ্ধে এসব তৃণমূলের অপপ্রচার ।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here