শিশুর মাথায় আটকে গেল হাঁড়ি, দমকল বাহিনী ও চিকিৎসকের হস্তক্ষেপে রেহাই পেল শিশু

সুশান্ত ঘোষ, আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ২৩ নভেম্বর: মাত্র ১১ মাস বয়স। খেলতে খেলতে মাথার মধ্যে ঢুকে যায় স্টিলের হাঁড়ি। পরিবারে লোকজন অনেক চেষ্টা করেও ব্যার্থ। খবর দেওয়া হয় দমকল বাহিনীকে। তারাও ব্যর্থ হয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত বনগাঁ হাসপাতলের চিকিৎসকের হস্থক্ষেপে হাঁড়ি থেকে রেহাই পায় ওই শিশুটি। মঙ্গলবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ থানার কালোপুর বিশ্বাসপাড়া এলাকায়। আহত ১১ মাসের শিশুটির নাম দেবরাজ সরকার।

পরিবার সূত্রে খবর, এদিন সকালে মা অনিতা সরকার ছেলেকে বারান্দায় বসিয়ে ঘরের কাজ করছিলেন। সেই সময় হামাগুড়ি দিয়ে একটি স্টিলের হাড়ি নিয়ে খেলতে খেলতে মাথার মধ্যে ঢুকি দেয়। এরপর কান্নায় চিৎকার করতে থাকে শিশুটি। ঘর থেকে বেরিয়ে আসে তাঁর মা। বাইরে বেরিয়ে দেখে ছেলের মাথায় আটকে আছে হাঁড়ি। আশপাশের লোকজনদের সাহায্য চায় মা। বাড়িতে দীর্ঘক্ষণ চেষ্টা করার পর বের করা যায়নি ওই হাঁড়ি। এরপর খবর দেওয়া হয় দমকল বাহিনীকে, তারাও ব্যার্থ হয়। শিশুটি হাঁপিয়ে ওঠার আগেই দমকল বাহিনী তাকে বনগাঁ হাসপাতলে নিয়ে গেলে চিকিৎসক ও দমকল বাহিনীর প্রচেষ্টায় হাঁড়ি কেটে অবশেষে মাথা থেকে হাঁড়িটি বের করা হয়। যদিও চিকিৎসকরা জানিয়েছেন সুস্থ আছে ছোট্ট দেবরাজ।

এ বিষয়ে বনগাঁ দমকল বাহিনীর আধিকারীক শম্ভু কুন্ড বলেন, খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে আমরা দেরি না করে ছুটে আসি। দীর্ঘ এক ঘণ্টার চেষ্টায় অবশেষে শিশুর মাথা থেকে হাঁড়িটি কেটে বের করা হয়। সুস্থ-স্বাভাবিকভাবে শিশুটিকে তার মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিতে পেরে আমরা খুশি।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here