হোমওয়ার্ক ছাড়া লড়াই করতে নেমেই তৃণমূলের কাছে হারতে হয়েছে রাজ্য বিজেপিকে

নীল বনিক, আমাদের ভারত, কলকাতা, ৩০ নভেম্বর: হোমওয়ার্ক না করে লড়াই করার জন্য হারতে হয়েছে রাজ্য বিজেপিকে। খড়গপুরের মতো নিশ্চিত আসনে হারার পিছনে দলের হোমওয়ার্ক না করাই কাল হয়েছে বলে মনে করছে বিজেপি নেতৃত্বের একাংশ। অন্যদিকে কালিয়াগঞ্জে রাজবংশীদের নিজেদের অনুকূলে আনতে ব্যর্থ হয়েছে বিজেপি।

খড়্গপুরে উপনির্বাচনে শেষ দু’মাস মাটি কামড়ে পড়েছিল পিকের টিম। তারা ভারতীয় রেলের বেসরকারি করণ নিয়ে তোতাপাখির মতো ক্লাস নিয়েছে স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের। রেলের বেসরকারিকরণ কীভাবে হচ্ছে তা পরিসংখ্যান দিয়ে স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের বোঝান। খড়গপুর শহরে প্রায় ৪২ হাজারের কাছাকাছি রেলের কর্মীদের ভোট রয়েছে। প্রশান্ত কিশোরের টিমের ছেলেরা রেলের বেসরকারিকরনের বিষয়টি তথ্য সহকারে রেল কলোনির মানুষকে বোঝাতে পেরেছেন। ব্যাঙ্কের সুদ কমা ও ব্যাঙ্ক সংযুক্তিরণের মতো কেন্দ্রের সিদ্ধান্তগুলি নিয়ে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে মানুষকে বুঝিয়েছেন স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে প্রশান্ত কিশোরের টিমের ছেলেরা।

সূত্রের খবর মোদি সরকারের বেহাল অর্থনীতি নিয়ে মানুষের কাছে যাবার জন্য পিকে তার দলে দুজন অর্থনিতীর ছাত্রও রেখেছিলেন, যারা রাষ্ট্রয়াত্ব সংস্থার বিলগ্নীকরণের মতো সিদ্ধান্ত নিয়ে মানুষের মধ্যে জনমত তৈরি করতে সক্ষম হয়েছেন।

তবে, রেলের বেসরকারিকরণ নিয়ে রেল কলোনির ভোটারদের মধ্যে সব থেকে বেশি মোদি সরকারের বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছেন। বিগত বিধানসভা নির্বাচনে দিলীপ ঘোষ রেল কলোনি থেকে বড় ব্যাবধানে লিড নিয়েছিলেন। এবার প্রশান্ত কিশোরের টিমের ছকে রেল কলোনিতেই বিজেপি ভোট পায়নি। খড়গপুর হাতছাড়া হবার যা একটা অন্যতম কারন। কারন, খড়গপুরে এনআরসির কোনও প্রভাব নেই। কারন সেখানে পূর্ববঙ্গের মানুষ খুব একটা বসবাস করেন না।

অন্যদিকে কালিয়াগঞ্জের মতো আসনও হাতছাড়া হয়েছে হোম ওয়ার্কের অভাবে। বিগত লোকসভা ভোটে এই বিধানসভায় রাজবংশীদের নিজেদের অনুকূলে নিতে সমর্থ হয়েছিল বিজেপি। এই বিধানসভায় প্রায় ৪৫ হাজার রাজবংশী ভোটার রয়েছে। লোকসভা ভোটের আগে রাজবংশী নেতাদের সঙ্গে একান্তে বৈঠক করে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী তাদের নিজের পাশে পেয়েছিলেন। এবার তাদের ম্যানেজ করার কোনও চেষ্টাই করেনি মুরধিধর সেন লেন। তৃণমূল এই সুযোগটাই নিয়ে নেয়। তারা রাজবংশীদের স্থানীয় নেতাদের ম্যানেজ করতে অনেকটাই সক্ষম হয়েছিল। যারফলও হাতেনাতে পেয়েছে রাজ্যের শাসক দল।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here