কোলাঘাটে স্বামীকে খুনের অভিযোগে স্ত্রীকে মারধর করে চুল কেটে নিল গ্রামবাসীরা

আমাদের ভারত, পূর্ব মেদিনীপুর, ২৩ জুলাই: গভীর রাতে স্বামীকে খুন করে কড়িকাঠে ঝুলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ স্ত্রীর বিরুদ্ধে। রাতারাতি পুলিশকে আত্মহত্যার খবর দিয়ে মৃতদেহ নিয়ে চলে যাওয়ায় সকালে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে গ্রামবাসীরা। অভিযুক্ত স্ত্রীকে বেঁধে মারধর সহ তার মাথার চুল কেটে একটি মন্দিরের মধ্যে ঢুকিয়ে গ্রিলে তালা বন্ধ করে আটকে রাখে গ্রামবাসীরা। মৃতের শ্বশুর বাড়ির লোকজনদের মারধর করে আটকে রাখে বিক্ষোভকারীরা। পূর্ব মেদিনীপুরের কোলাঘাট থানা এলাকার কাউরচণ্ডী গ্রামের ঘটনা। পুলিশ গন্ডগোলের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এলে পুলিশকে আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে গ্রামবাসীরা।

মৃতের নাম সুব্রত দাস। স্ত্রীর নাম সুপর্ণা দাস। সুপর্ণার বক্তব্য তার স্বামী মদ্যপ অবস্থায় এসে প্রায় সময় অশান্তি করতো। মারধর করতো তাকে। গতকাল রাতেও তাকে মারধর করে নিজে আত্মহত্যা করে। রাতেই প্রতিবেশীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে সকলকে ডেকেছে কিন্তু কেউ আসেনি। পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে দেহ নিয়ে গিয়েছে।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, সেলফ হেলফ গ্রুপ থেকে দু-লক্ষ টাকা লোন নিয়েছিল গৃহবধূ। স্বামীকে মেরে টাকা ফাঁকি দিতে চাইছে। পরিস্থিতি সামাল দেওয়াতো দূর, ক্ষোদ পুলিশই গ্রামবাসীদের ঘেরাটোপে আটকে থাকে। আজ সারা রাজ্যে লকডাউন চললেও এখানে কার্যত লক ডাউন শিকেয় উঠে। গ্রামবাসীদের বক্তব্য ছেলেটি ফুল ও সবজির ব্যবসা করতো। বৌ দজ্জ্বাল। প্রায় সময় বাড়িতে অশান্তি চলত। বেশ কয়েকবার পাড়া প্রতিবেশী ও গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য বীজেন সামন্ত মীমাংশা করে দিয়েছে। তা সত্ত্বেও কি করে এমন ঘটনা ঘটল। গ্রামবাসীদের দাবি, পুলিশকে এমনিতে ডাকলে আসে না, এ ক্ষেত্রে রাতারাতি কি করে দেহ লোপাট হয়ে গেল। কেন কাউকে জানানো হল না। রাতেই প্রতিবেশীরা গলায় ফাঁস দিয়ে মৃত্যুর কথা জানতে পেরেছিল। সকালে পুলিশকে ডাকবে বলেছিল সকলে। কিন্তু আগেই পুলিশ এসে দেহ নিয়ে চলে যায়। দেহ আবার গ্রামে ফিরিয়ে আনতে হবে, তারপর তদন্ত শুরু করুক পুলিশ এই দাবি গ্রামবাসীদের। এই নিয়ে চলে ব্যাপক উত্তেজনা।

পরিস্থিতি সামাল দিতে ও বিক্ষোভকারীদের হাতে আটকে থাকা পুলিশ এবং অভিযুক্তদেরকে ছাড়াতে বিরাট পুলিশ বাহিনী গ্রামে আসে। বিক্ষোভকারীদের হাত থেকেই মহিলা এবং তার পরিবারের লোকদেরকে ছাড়িয়ে থানায় আনতে গেলে পুলিশের উপর ইট বৃষ্টি হয় বলে জানাগেছে। এর পরে পুলিশ ব্যাপক লাঠিচার্জ করে বিক্ষোভকারীদের এলাকা থেকে হঠিয়ে দেয়। এই ঘটনায় বেশ কয়েকজন পুলিশ কর্মী ও গ্রামবাসী আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। এই ঘটনার জেরে পুলিশ বেশ কয়েকজন গ্রামবাসীকে আটক করে থানায় নিয়ে এসেছে বলে খবর।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here