তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্য পাঁচ টাকায় সারা মাসের বাজার

আমাদের ভারত, দক্ষিণ ২৪ পরগণা, ৩ মে:
এবার তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্য সারা মাসের বাজারের ব্যবস্থা করল পেটালস নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। রবিবার দক্ষিণ ২৪ পরগণার নরেন্দ্রপুর থানার অন্তর্গত পাঁচপোতা এলাকায় এরকম পচাত্তরটি পরিবারের হাতে যেমন পাঁচ টাকার বিনিময়ে এই সংস্থাটি সারা মাসের চাল, ডাল, আলু সহ মোট ১৮টি প্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী তুলে দেন, তেমনি অসুস্থ মানুষদের ওষুধ কেনার জন্য আর্থিক সাহায্য লও করেন। তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্য এই আর্থিক সাহায্য করায় ঐ সংস্থার প্রতিটি সদস্যকে সাধুবাদ জানিয়েছেন এই প্রান্তিক ও দুঃস্থ মানুষগুলি।

লকডাউনের ফলে এই সমস্ত তৃতীয় লিঙ্গের মানুষজনের রোজগার সম্পূর্ণ বন্ধ। দক্ষিণ ২৪ পরগণার গড়িয়া, বারুইপুর, সোনারপুর এলাকার এই সমস্ত মানুষজন তাই যথেষ্ট সমস্যায় পড়েছেন। সরকারি কিম্বা বেসরকারি উদ্যোগে সেভাবে এরা কেউই কোনও সাহায্য পাননি। খুব অসহায় অবস্থার মধ্যে দিন কাটছিল তাদের। এমতাবস্থায় সোশ্যাল মিডিয়ায় পেটালসের সামাজিক কাজ সম্পর্কে জানতে পারেন এই তৃতীয় লিঙ্গের একজন। তিনিই ব্যক্তিগত ভাবে যোগাযোগ করেন পেটালসের সদস্যদের সাথে। তার কাছ থেকেই তৃতীয় লিঙ্গের এই সমস্ত মানুষের অসহায় অবস্থার কথা জানতে পেরে এদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য উদ্যোগী হয় পেটালস। এদের হাতে ত্রাণ তুলে দেওয়ার জন্য ইচ্ছা প্রকাশ করে নরেন্দ্রপুর থানার সাথে যোগাযোগ করা হয় পেটালসের তরফ থেকে। পেটালসের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান পুলিশ প্রশাসন। অবশেষে রবিবার নরেন্দ্রপুর থানার সহযোগিতায় গড়িয়ার পাঁচপোতা এলাকায় গিয়ে তৃতীয় লিঙ্গের এই মানুষগুলির হাতে ত্রাণ পৌঁছে দেন পেটালসের সদস্যরা। তবে এই সমস্ত প্রান্তিক মানুষজনের আত্মসম্মানের কথা মাথায় রেখে প্রত্যেকের কাছ থেকে পাঁচ টাকা মূল্যের বিনিময়ে এই সাহায্য তুলে দেওয়া তাদের হাতে।

পেটালসের অন্যতম উদ্যোক্তা পৌষালি বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “লকডাউনের ফলে এই তৃতীয় লিঙ্গের মানুষজন যথেষ্ট সমস্যায় রয়েছেন। তাদের রোজগার সম্পূর্ণ বন্ধ। অসহায় এই সমস্ত মানুষজনের কথা জানতে পেরে এদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করি আমরা। স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় এদের হাতে একমাসের বাজার আমরা তুলে দিতে পেরেছি। তবে ওদের আত্ম সম্মানের কথা মাথায় রেখে প্রত্যেকের কাছ থেকে পাঁচ টাকা করে নেওয়া হয়েছে”।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here