“তিন দিক থেকে মিছিল করে নবান্ন ঘেরাও করবে যুব মোর্চার কর্মীরা”

নীল বনিক, আমাদের ভারত, কলকাতা, ৭ অক্টোবর :
আগামী বৃহস্পতিবার কলকাতায় তিন দিক দিয়ে মিছিল করে নবান্ন ঘেরাও কর্মসূচি নিল যুব মোর্চা। দক্ষিণ কলকাতার যুব মোর্চার কর্মীরা হেস্টিংসের সামনে জমায়েত হবেন। সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায়ের নেতৃত্বে মিছিলটি এগিয়ে যাবে নবান্নের দিকে। ওই মিছিলে থাকবেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও অরবিন্দ মেনন। আরেকটি মিছিল সাঁতরাগাছির দিক থেকে নবান্নে আসবে বলে যুব মোর্চা সূত্রের খবর। হাওড়া জেলার যুব মোর্চার কর্মীরা দলের সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসুর নেতৃত্বে নবান্ন অভিযান ঘেরাও কর্মসূচি পালন করবেন। হাওড়া সাঁতরাগাছি মিছিলে থাকবেন যুব মোর্চার সর্বভারতীয় সভাপতি তেজস্বতী সূর্য।

উত্তর কলকাতা সহ উত্তর চব্বিশ পরগনার যুব মোর্চার কর্মীরা রাজ্য বিজেপির সদরদপ্তরে জমায়েত হবেন। সেখান থেকেই বিজেপি কর্মীরা নবান্নের দিকে রওনা হবেন। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বে বিজেপি কর্মীরা সেন্ট্রাল এভিনিউ দিয়ে নবান্নের দিকে রওনা হবেন। এছাড়াও দিলীপ ঘোষের সঙ্গে মিছিলে পামেলা ভিন রাজ্য বিজেপির অন্যান্য সাংসদরাও।

বিজেপির নবান্ন ঘেরাও কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে আগামীকাল অর্থাৎ বৃহস্পতিবার তৈরি থাকছে কলকাতা পুলিশ। লালবাজার সূত্রের খবর, বিজেপির সদর দপ্তর থেকে যে মিছিলটি বের হবে ধর্মতলার পরেই সেই মিছিলটিকে আটকে দেবে কলকাতা পুলিশ। মিছিল যাতে নবান্নের দিকে যেতে না পারে তার জন্য ব্যারিকেড করা হবে। এছাড়াও জলকামান সহ টিয়ার গ্যাসের ব্যবস্থাও রেখেছে কলকাতা পুলিশ। বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধস্তাধস্তিতে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদের হাসপাতালে পাঠানোর জন্য অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থাও করে রেখেছে কলকাতা পুলিশ। নবান্ন ঘেরাও অভিযানে যাতে কোনও বিজেপি কর্মী নবান্নের দিকে যেতে না পারে তার জন্য আগামীকাল সকাল থেকেই সাদা পোশাকের পুলিশ মোতায়েন করা হবে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here