কেন্দ্রীয় প্রকল্পে বাড়ি তৈরী নিয়ে বিস্তর অভিযোগ রামপুরহাটে

আশিস মণ্ডল, বীরভূম, ২৫ অক্টোবর: ‘সবার জন্য গৃহ’ প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা এই প্রকল্পে নিম্নমানের বাড়ি নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে রামপুরহাটে। বৃষ্টিতে ছাদ চু্ঁইয়ে জল পড়ছে, কোথাও কোথাও আবার বাড়ি অসম্পূর্ণ থেকে গিয়েছে। ওয়ার্ডের কো-অর্ডিনেটর ভগীরথ দাস অবশ্য সমস্ত দায় চাপিয়েছে উপভোক্তার উপরেই।

২০১৫ সালে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা প্রকল্পে পুরসভা এলাকায় সবার জন্য গৃহ নির্মাণের কাজ শুরু হয়। সে সময় রামপুরহাট পুরসভায় ১৮ টি ওয়ার্ডে ৫৬৯৭ টি কাঁচা বাড়ি চিহ্নিত করা হয়। পিছিয়ে পড়া রামপুরহাট পুরসভার ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে ৩৮২ জন আবেদন করেন।ধীরে ধীরে সেই বাড়ি নির্মাণ শুরু হয়। কিন্তু বাড়ি নিয়ে হাজারো অভিযোগ রয়েছে উপভোক্তাদের। বৃষ্টি হলেই ছাদ থেকে জল পড়ছে ঘরের ভিতর। কেউ কেউ রান্না ঘর না পেয়ে বাথরুমেই রান্না করছেন। ফলে তাদের শৌচকর্ম সারতে হচ্ছে প্রকাশ্যেই। কারও কারও বছরের পর বছর বাড়ি করতে সময় নিয়েও বাড়ি সম্পূর্ণ না হওয়ায় খোলা আকাশের নিচে চলছে রান্না। থাকতে হচ্ছে অপরের বাড়িতে। কারো বাড়ি হলেও দরজা জানালা লাগানো হয়নি। তাই ঝড় বাদলে সমস্যায় পড়ছে পরিবারের সদস্যরা। এমনো হাজারো সমস্যা নিয়ে বিব্রত রামপুরহাট পুরসভার পিছিয়ে পড়া ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের উপভোক্তাদের একাংশ।

বাপি দাস বলেন, “দীর্ঘদিন ধরে বাড়ি নির্মাণের কাজ চলছে। এখনও পর্যন্ত রান্নাশালা তৈরি হয়নি। জানালা লাগানো হয়নি। বাড়ির পলেস্তারা শেষ করা হয়নি। অথচ সমস্ত টাকা ঠিকাদারকে দেওয়া হয়েছে”।

বৈদ্যনাথ দাস বলেন, “বছর তিনেক থেকে বাড়ি তৈরি হচ্ছে। কিন্তু এখনও কাজ সম্পূর্ণ হল না। ফলে বাড়ি ভেঙ্গে বিপদে পড়েছি। এখনও খোলা আকাশের নিচে খাওয়াদাওয়া আর রাতে অন্যের বাড়িতে ঘুমোতে যেতে হয়। এখন বলছে ভোটের পর বাড়ি সম্পূর্ণ হবে”।

ওয়ার্ডের কো-অর্ডিনেটর ভগীরথ দাস বলেন, “ছাদের উপর খড় রাখার জন্য ছাদে জল জমছে। তবে যাদের বাড়ির ছাদ থেকে জল পড়ছে ভিতরে তাদের বাড়ি পুরসভার পক্ষ থেকে ঠিক করে দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে”।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here