বিদ্যাসাগরের জন্মদিবসে শ্রদ্ধা জানিয়েও মূর্তি ভাঙ্গার ঘটনা স্মরণে বঙ্গ আবেগে রোমন্থন মুখ্যমন্ত্রীর

রাজেন রায়, কলকাতা, ২৬ সেপ্টেম্বর: ২০১৯–এর মে মাসে লোকসভা নির্বাচনের সময় বিজেপি–র তৎকালীন সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের এক রোড শো চলাকালীন বিদ্যাসাগর কলেজে ঢুকে কয়েকজন দুষ্কৃতী বিদ্যাসাগরের আবক্ষ মূর্তি ভেঙ্গে দেয়। সেই সময়ে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রবল রাজনৈতিক বিবাদে জড়িয়ে পড়ে বিজেপি-তৃণমূল যুযুধান দুই রাজনৈতিক শিবির। শনিবার ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের দ্বিশতবর্ষ জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে টুইট করে শ্রদ্ধা জানালেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একই সঙ্গে গত বছরে বিদ্যাসাগর কলেজের ভিতরে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙ্গে দেওয়ার ঘটনার কথা মনে করিয়ে দিলেন তিনি।

প্রসঙ্গত, আগামী বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এখন থেকেই ঘুঁটি সাজাতে শুরু করে দিয়েছে তৃণমূল। তারাই যে আসল ভূমিপুত্র এবং বিজেপি আসলে বহিরাগত, তা বোঝানোর চেষ্টা ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। তাই এদিন ট্যুইটেও হামলাকারীদের ‘‌কয়েকজন বহিরাগত’‌ হিসেবে উল্লেখ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছেন, ‘’২০১৯ সালে কয়েকজন বহিরাগত বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙ্গে। এতে বাংলার ঐতিহ্য ও গরিমা নষ্ট করার চেষ্টাই প্রকাশ পেয়েছে। বিদ্যাসাগরের ভাবনাচিন্তা ও মতাদর্শ আজীবন আমাদের মূল্যবোধের সঙ্গে জড়িত থাকবে।’‌ এছাড়াও তিনি লিখেছেন, ‘বাংলা ভাষার পথিকৃৎ বর্ণপরিচয়ের স্রষ্টা বিদ্যাসাগরের দ্বিশতবর্ষ জন্মদিবসে শ্রদ্ধার্ঘ্য। আজীবন বিধবা বিবাহ প্রচলন ও বাল্য বিবাহ রোধের বিরুদ্ধে লড়েছেন দয়ার সাগর। বিদ্যাসাগর বাংলার গর্ব। বর্তমান সময়েও তিনি আমাদের এগিয়ে চলার অনুপ্রেরণা।’

২০১৯ সালে সেই সময় মূর্তি ভাঙ্গার ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ওই কলেজের একই জায়গায় বিদ্যাসাগরের একটি বিরাট মূর্তি স্থাপন করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু ওই ঘটনার এক মাসের মধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী কলেজের ঠিক সেই জায়গায় বিদ্যাসাগরের এক নতুন আবক্ষ মূর্তি উন্মোচন করেন। ফলে পরে এই নিয়ে বিজেপিকে আর সেই ভাবে সক্রিয় হতে দেখা যায়নি। সেই কারণে বঙ্গ আবেগ উসকে দিতে এবার বিদ্যাসাগরের জন্মদিবসেও সেই ইস্যুকে হাতিয়ার করেই ট্যুইট করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here