ইছাপুরে স্বামী বিবেকানন্দের মূর্তি ভাঙ্গার চেষ্টার ঘটনায় ধৃত ৩ দুষ্কৃতী

আমাদের ভারত, ব্যারাকপুর, ২৭ সেপ্টেম্বর : উত্তর ২৪ পরগনার নোয়াপাড়া থানার অন্তর্গত ইছাপুর কদমতলায় স্বামী বিবেকানন্দের মূর্তিতে দুষ্কৃতী হামলার ঘটনায় ৩ জন কুখ্যাত দুষ্কৃতীকে গ্রেপ্তার করল নোয়াপাড়া থানার পুলিশ। শুক্রবার গভীর রাতে ইছাপুর কদমতলা এলাকায় স্বামীজীর আবক্ষ মূর্তি ভাঙ্গার চেষ্টা করে ৩ কুখ্যাত দুষ্কৃতী। শনিবার সকালে দেখা যায় স্বামীজীর আবক্ষ মূর্তির বাইরের কাঁচের আবরণ ভেঙ্গে গেছে। এরপরই স্থানীয় এক দোকানের সিসিটিভি ফুটেজ পরীক্ষা করলে দেখা যায় ইছাপুর ২০ নম্বর রেলগেট এলাকার কুখ্যাত ৩ দুষ্কৃতী এই ঘটনা ঘটিয়েছে। তড়িঘড়ি তদন্তে নামে নোয়াপাড়া থানার পুলিশ।

পুলিশ ১২ ঘণ্টার মধ্যেই গ্রেপ্তার করে এই মূর্তি ভাঙ্গার চেষ্টার ঘটনায় জড়িত তিন অভিযুক্তকে। ধৃতদের নাম জানা গেছে অজয় হরি ওরফে ব্যঙ্গ, বিট্টু সাঁতরা এবং রাজেশ সিং। নোয়াপাড়া থানার পুলিশ জানিয়েছে, এই তিন দুষ্কৃতী ইছাপুর কদমতলা এলাকায় স্বামীজীর আবক্ষ মূর্তি ভাঙ্গার চেষ্টা করেছিল। এই দুষ্কৃতীরা নেশাগ্রস্ত অবস্থায় ওই মূর্তিতে আঘাত করলে মূর্তির বাইরের কাঁচের আবরণ ভেঙ্গে যায়। পরে সেই শব্দে স্থানীয়রা বাড়ির বাইরে বেরলে ওই দুষ্কৃতীরা পালিয়ে যায়।

গোটা ঘটনায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয় ইছাপুর এলাকায়। তৃণমূল কংগ্রেস অভিযোগ, করে এই কান্ড ঘটিয়েছে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। রাজ্যের শাসকদল বিষয়টি নিয়ে ইছাপুর কদমতলা এলাকায় প্রতিবাদ সভা করে। তবে বিজেপির পক্ষ থেকে জানানো হয়, যে দুষ্কৃতীরা গ্রেপ্তার হয়েছে, তারা বিজেপি দলের কেউ নন। এদিকে নোয়াপাড়া থানার পুলিশ সূত্রের খবর, যে ৩ দুষ্কৃতী ধরা পড়েছে তারা ইছাপুর এলাকার কুখ্যাত সমাজ বিরোধী। ইছাপুর এলাকায় এই দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে একাধিক অসামাজিক কাজের অভিযোগ আছে। এই মূর্তি ভাঙ্গার চেষ্টা করেছিল মূলত অজয় হরি ওরফে ব্যঙ্গ। সে এই দুষ্কৃতীদের পান্ডা। পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ধৃত ৩ দুষ্কৃতী পুলিশের কাছে তাদের অপরাধ স্বীকার করেছে। স্বামীজীর এই মূর্তিতে হামলার ঘটনার জেরে ইছাপুর এলাকায় তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here