২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে সিপিএম, কংগ্রেসকে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের আহ্বান মমতার

২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে সিপিএম, কংগ্রেসকে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের আহ্বান  মমতার

শ্রীরূপা চক্রবর্তী, আমাদের ভারত, ২১ জুলাই: একসময় যে বাম সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনের প্রতীক হিসেবে ২১ জুলাইয়ের সমাবেশের ডাক দিতেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবার সেই মঞ্চ থেকেই বামেদের ও কংগ্রেসকে তার সঙ্গে বিজেপি বিরোধী আন্দোলনে সামিল হবার ডাক দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ৩৪ বছরের বাম সরকারকে ফেলে দিতে যে ২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে সবচেয়ে বেশি সোচ্চার হয়ে এসেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো এবার সেই মঞ্চ থেকেই তার সাথে লড়াই করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি বামেদের ও কংগ্রেসকেও।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন দলের ভিত যে নড়ে গেছে তা নেত্রী যথেষ্ট ভালো ভাবেই বুঝেছেন। তাই তো দলীয় কর্মীদের ২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে পথে নেমে রাজনীতি করার আহ্বান জানালেন তিনি। বললেন পাড়ার চায়ের দোকানে বসে রাজনীতি করুন। পথে নেমে রাজনীতি করুন। পথই পথ দেখাবে।

নেত্রী বলেন সিপিএমের হার্মাদরা এখন বিজেপির ওস্তাদ। তাই তাদের উচিত শিক্ষা দিতে পুরোনো কেস আবার নতুন করে শুরু করা হোক। কংগ্রেসকে বিজেপির পরগাছা না হয়ে রাস্তায় নেমে আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান তিনি। বলেন যে ডালে বসে আছেন সেই ডাল না কেটে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করুন। অর্থাৎ ঘুরিয়ে তৃণমূলের বদলে বাম-কংগ্রেসকে বিজেপির বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তোলার কথা বলেন তিনি। একই সঙ্গে তিনি দলের কর্মীদের নির্দেশ দেন পাড়ায় যদি কোন পুরোনো ভালো বাম বা কংগ্রেস কর্মী থাকেন তাদের তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে যুক্ত করুন।

এদিনে নেত্রীর বক্তব্যের পড়তে পড়তে ছিল কর্মীদের জন্য আশ্বাস বানী। নেত্রী বলেন “আগামী দিনে আদর্শ দল হিসেবে ঘুরে দাঁড়াবে তৃণমূল কংগ্রেস। ভয় পাবেন না। রুখে দাঁড়ান।” নেত্রী এই বক্তব্য থেকে স্পষ্ট যে পায়ের তলার মাটি সরেছে রাজ্যের শাসক দলের। তাই তো ২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে এতদিন সারা বছরের দলের কর্মসূচি নির্ধারণ করে দিয়ে এসেছেন নেত্রী। এদিন কিন্তু নেত্রী তার করেননি। বরং দলের আগামী কর্মসূচি ঘোষণার জন্য আলাদা একটা দিন নির্ধারণ করেছেন। ২৯ জুলাই আগামী ৩ মাসের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে নেত্রী বলেন। আর ২১ জুলাইয়ের এই মঞ্চ এবার শুধুই ছিল দলের কর্মীদের হতাশা থেকে বের করে আনার অদম্য চেষ্টা।

জাতীয় দল হিসেবে তকমা হারাতে বসেছে তৃণমূল। এই খবর যে দলীয় কর্মীদের মনোবল ভেঙেছে তা বুঝতে অসুবিধা হয়নি দিদিমণির। তাইতো জাতীয় দলের তকমা নিয়ে মাথা না ঘামানোর পরামর্শ দিয়েছেন তিনি ২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে।

এদিন নেত্রী বুথ লেভেলের সংগঠনকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান। বিশ্লেষকরা মনে করছেন , নেত্রীর এই আহ্বান আসলে সাধারণ মানুষ যে তাদের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে তার উপলব্ধির ফল। তাইতো বার বার আজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মানুষের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করার পরামর্শ দিয়েছেন দলের কর্মীদের। এককথায় পায়ের তলায় মাটি যে সরে গিয়েছে তা বুঝেছে রাজ্যের শাসক দল। আর সেই কারণেই দলের সবচেয়ে বড় কর্মসূচী থেকে খড়কুটোর মত সিপিআইএম কংগ্রেসকেও ধরার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 − two =