আশোকনগরে একুশের পতাকা উত্তোলন নিয়ে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, আহত দু’পক্ষের ৫

আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ২১ জুলাই:
একুশে জুলাইয়ের পতাকা উত্তোলন নিয়ে ফের প্রকাশ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। বিধায়ক এবং প্রাক্তন চেয়ারম্যান অনুগামীদের মধ্যে সংঘর্ষ। এই ঘটনায় দু’পক্ষের পাঁচজন আহত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগর থানার ২ নম্বর ওয়ার্ডের মৈত্রী সংঘের ক্লাবে এলাকায়।

স্থানীয় সূত্রের খবর, মঙ্গলবার দুপুরে অশোকনগর ২ নম্বর ওয়ার্ডের মৈত্রী সংঘের ক্লাবে একুশে জুলাইয়ের পতাকা তুলতে যান বিধায়ক ধীমান রায়ের অনুগামীরা। অভিযোগ, সেই সময় প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রবোধ সরকারের অনুগামীরা তাদের পতাকা তুলতে বাধা দেয়। যা নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে শুরু হয় বচসা। বচসা গড়ায় হাতাহাতি মারপিট পর্যন্ত। জানাগিয়েছে, এই ঘটনায় দুই পক্ষের ৫ জন আহত হয়েছেন। যা নিয়ে ইতিমধ্যে বিধায়ক ও প্রাক্তন চেয়ারম্যানের মধ্যে চাপানউতোর শুরু হয়েছে।

বাপ্পা ঘোষাল নামে এক তৃণমূল কর্মী জানিয়েছেন, আমরা প্রথম থেকে তৃণমূল করি, সিপিএম ছেড়ে যারা তৃণমূলে যোগ দিয়েছে তারাই এই অত্যাচার করছে। তৃণমূলের কর্মী হয়ে আজ প্রাক্তন চেয়ারম্যানের অনুগামীরা আমাদের মারধর করল।

এ বিষয়ে প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রবোধ সরকার বলেন, প্রতিবছর একুশে জুলাই আমরা মৈত্রী সংঘ ক্লাবের সামনে পতাকা তুলি। এবছর ঝামেলা করার জন্য বিজেপির লোকেরা ইচ্ছাকৃতভাবে পতাকা তুলতে যান ও আমাদের কর্মীদের মারধর করেন।

সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে বিজেপির অশোকনগরের কনভেনার স্বপন দে বলেন, এই ঘটনার সঙ্গে বিজেপির কোন যোগ নেই। এটা পুরোপুরি তৃণমূলের অভ্যন্তরীণ বিষয় এবং গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফল। যদি এ বিষয়ে বিধায়ক বিধান রায়ের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here