রাজ্য সভায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বক্তব্যের কাগজ ছিনিয়ে ছিঁড়ে ফেললেন তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন

আমাদের ভারত, ২২ জুলাই: চুড়ান্ত নাটকীয় ঘটনার সাক্ষী থাকল আজ রাজ্যসভা। ঘটানার সৌজন্যে রয়েছেন তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন। রাজ্য সভায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণবের হাত থেকে তাঁর বক্তৃতার কাগজ একেবারে ছিনিয়ে নিয়ে ছিড়ে ফেললেন তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন। আর এই ঘটনার জেরেই বেশ কিছুক্ষণ অশান্তির পরিবেশ তৈরী হয় সংসদের উচ্চকক্ষে। এরপরেই শুক্রবার পর্যন্ত মুলতবি হয়ে যায় রাজ্যসভার অধিবেশন। বিজেপির তরফে ঘটনার তীব্র নিন্দা করা হয়েছে।

সংসদের বাদল অধিবেশনে তৃতীয় দিনে পেগাসাস স্পাইওয়্যার নিয়ে সরকারপক্ষের তরফের বক্তৃতা শুরু করেছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব। আর সেই সময়েই পেগাসাস স্পাইওয়্যারের সাহায্যে ফোনে আড়িপাতা, নয়া কৃষি আইন সহ একাধিক বিষয়ের বিরোধীতায় সরব হন বিরোধীরা। তারা সভাকক্ষে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন। সেই সময় হঠাৎই শান্তনু অশ্বিনী বৈষ্ণবের কাছে চলে গিয়ে, তাঁর বক্তৃতার কাগজ ছিনিয়ে নিয়ে ছিঁড়ে, ডেপুটি চেয়ারম্যান হরিবংশ নারায়ণ সিং-এর আসনের দিকে ছুড়ে দেন। ঘটনার প্রতিবাদে সরব হন বিজেপি সাংসদরা। হট্টগোল শুরু হয়ে যায় রাজ্যসভায়। শেষ পর্যন্ত অধ্যক্ষ ভেঙ্কাইয়া নাইডু আজকের মতো সভা মুলতবি ঘোষণা করেন। সরকার এবং বিরোধী পক্ষের সাংসদদের বাক বিতন্ডার জেরে লোকসভাও আজ মুলতবি হয়ে যায়।

শান্তনু সেনের এই আচরণের তীব্র নিন্দা করেছে বিজেপি প্রতিমন্ত্রী মিনাক্ষী লেখি। তিনি বলেছেন, এই ধরনের আচরন গণতন্ত্রে আগে কখনো দেখিনি। বিজেপি সংসদ মহেশ পোদ্দার বলেছেন, বাংলায় তারা যখন প্রতিপক্ষকে হত্যা করতে এবং মহিলাদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করতে পারে তখন তারা সব কিছুই করতে পারে। আজ ওরা কাগজ ছিনিয়ে নিয়ে ছিঁড়ে ফেলেছে আগামীকাল যদি জামা কাপড় ছিড়ে দেয় অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। বিজেপি সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত বলেন, আইটি মন্ত্রী বিবৃতি দেওয়ার পরে আপনার তাকে প্রশ্ন করার অধিকার ছিল। কিন্তু বিতর্কে যাওয়ার পরিবর্তে আমরা কি এই ধরনের গুণ্ডামি দেখব হাউসের মধ্যে? এটি সম্পূর্ণরূপে নিয়মবিরুদ্ধ। যদিও তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায় এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাননি।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here