নিখোঁজ টোটো চালকের রহস্যে মোড়া রক্তমাখা দেহ উদ্ধার বালুরঘাটে, অবৈধ সম্পর্কের জের মনে করছে পুলিশ

আমাদের ভারত, বালুরঘাট, ২৩ জানুয়ারি: ফাঁকা মাঠে এক ব্যক্তির রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধারকে ঘিরে চাঞ্চল্য। বৃহস্পতিবার দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাটের ডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের পশ্চিম রায়নগরের পাঙারপাড়া এলাকার ঘটনা। পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের নাম সুকুমার বর্মন (৪৫)। পাঙ্গারপাড়া এলাকারই বাসিন্দা সে। এদিন বাড়ি থেকে প্রায় ৫০০ মিটার দূরে বালুরঘাট ল’কলেজের পেছনে ফাঁকা মাঠে তাঁর রক্তাক্ত মৃতদেহ দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। পুলিশ পৌঁছে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠায় বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, বুধবার সন্ধ্যায় টোটো রেখে বাড়ি থেকে বের হবার পর থেকেই নিখোঁজ ছিলেন পেশায় টোটো চালক সুকুমার বর্মন। এদিন সকাল হতেই বাড়ি থেকে কিছুটা দুরে ফাঁকা মাঠে তার রক্তাক্ত মৃতদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। মৃতের মাথা সহ শরীরের একাধিক জায়গায় আঘাতের চিহ্ন মিলেছে। গলায়ও মিলেছে দাগ। একই সাথে ঘটনাস্থল থেকে কিছুটা দূরে পশ্চিম রায়নগর ফরেস্ট থেকে মৃত ব্যক্তির জুতো উদ্ধার করেছে পুলিশ। যেখানে একাধিক জায়গায় মিলেছে রক্তের চিহ্নও। এমন সব ঘটনা থেকে পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে অনুমান রায়নগর ফরেস্টে খুন করবার পরেই সেখান থেকে দেহ নিয়ে এসে ল’কলেজের পেছনে ফেলে দেওয়া হয়েছে।

বাসিন্দাদের অভিযোগ, দুই মেয়ের মধ্যে এক মেয়ের বিয়ে হলেও মাঝে মধ্যেই স্ত্রীর সাথে ঝামেলা বাধত টোটো চালক সুকুমার বর্মনের। যার কারণ হিসাবে অবৈধ সম্পর্ককেই দায়ী করেছেন তারা। পুরো ঘটনার তদন্তে নেমেছে বালুরঘাট থানার পুলিশ।

স্থানীয় বাসিন্দা কনক বর্মন, নিতাই বর্মন ও গজেন বর্মনরা জানিয়েছেন, বুধবার সন্ধ্যা থেকে নিখোঁজ ছিলেন টোটো চালক সুকুমার বর্মন। এদিন তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। রক্তমাখা দেহ দেখে তাদের অনুমান খুন করেই মেরে ফেলা হয়েছে তাকে।

ডিএসপি সদর ধীমান মিত্র জানিয়েছেন, ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here