তৃণমূল ও আইএসএফের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ, হাড়োয়ায় দু’পক্ষের জখম ১৪

আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগনা, ২৯ মার্চ:
উত্তর ২৪ পরগনার বসিরহাট মহকুমার হাড়োয়া থানার বকজুড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের মথুরা গ্রামে তৃণমূল ও আই এস এফের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ। রবিবার রাতে দুই পক্ষের সংঘষে অন্তত ১৪ জন জখম হয়েছে। তাদের হাড়োয়া গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, আই এস এফ করার অপরাধে রবিবার গভীর রাতে তৃণমূলের বেশ কয়েকজন দুষ্কৃতী হাতে লোহার রড, হাঁসুয়া, দা, এবং বন্দুক নিয়ে চড়াও হয় হাড়োয়ার বকজুরি গ্রামে। সেখানে আব্বাস সিদ্দিকী অনুগামীদের ঢুকে ঢুকে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। বাড়িতে থাকা প্রতিবন্ধী বাচ্চা এবং মহিলাদেরও রেয়াত করা হয়নি। দীর্ঘ সময় ধরে এলাকায় তান্ডব চলতে থাকে। আব্বাস অনুগামীদের বেধড়ক মারধর করতে থাকে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। ওই দুষ্কৃতীরা আই এস এফ কর্মীদের ঘর বাড়িও ভাঙ্গচুর করে বলে অভিযোগ।

এই ঘটনার প্রতিরোধে সংযুক্ত মোর্চার লোকজন তৃণমূলের ওপর পালটা হামলা চালায়। সংঘর্ষে গুরুতর আহত হয় উভয় পক্ষের ১৪ জন। তাদেরকে উদ্ধার করে হাড়োয়া গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসা হয়।
জানাযায় আই এস এফ কর্মীদের মারে তৃণমূলের চারজন আহত হয়েছে।

এই ঘটনায় দুপক্ষই লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে হাড়োয়া থানায়। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। এলাকায় যথেষ্ট উত্তেজনা রয়েছে। এলাকায় পুলিশ টহল দিচ্ছে, পাশাপাশি পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে।

এদিকে হামলার সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব। তাদের বক্তব্য, তৃণমূলকে কালিমালিপ্ত করার জন্য এভাবেই নিজেদের পরিবারিক ঝামেলাকে তৃণমূলের ঘাড়ে দোষ চাপাচ্ছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here