আন্তঃরাজ্য সীমান্তে পরিযায়ী শ্রমিকদের হয়রানি দূর করতে তৃণমূলের তদারকি শিবির পুরুলিয়া জেলাজুড়ে

সাথী প্রামানিক, পুরুলিয়া, ২৪ মে: পরিযায়ী শ্রমিকদের জেলায় ঢুকতে হয়রানি এড়াতে আন্তঃরাজ্য সীমান্ত এলাকায় শিবির করল পুরুলিয়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেস। রবিবার থেকেই জেলার বিভিন্ন আন্তঃরাজ্য সীমান্ত এলাকায় প্রবেশ পথের মুখে এই শিবির করল।

পুরুলিয়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক নবেন্দু মাহালী জানান,’শ্রমিকরা যে পথে ঢুকছেন আমাদের সীমানায় সেখানে পুলিশের নাকা চেকিং করা হচ্ছে। সেখানে গাড়ি নিয়ে পরিযায়ী শ্রমিকদের এন্ট্রি নিয়ে সমস্যা ঘটছে। ঘন্টার পর ঘন্টা খাবার এবং খাবার জল না পেয়ে শ্রমিকরা হয়রানি হচ্ছেন। কাজ করতে গিয়ে যে পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছি, এটা দলের সভাপতি তথা রাজ্যের মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাতো, জেলা সভাধিপতি তথা সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট সুজয় বন্দোপাধ্যায় ও অন্যান্য বিধায়কদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে দলীয়ভাবে শিবির খোলার জন্য প্রস্তাব দিয়েছিলাম। সেই প্রস্তাব গৃহীত হয় এবং এ দিন থেকেই জেলার আন্তঃরাজ্য সীমান্ত এলাকায় দলীয় ভাবে শিবির খোলা হয়।’ মন্ত্রী ও দলীয় নেতৃত্বের কাছে পুরুলিয়া মেডিকেল কলেজের হাতোয়াড়া চত্বরে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে একটি দুনিয়া তদারকি শিবিরের দাবি জানান নবেন্দু। তাঁর মতে ওখানেই সবচেয়ে বেশি হয়রান হচ্ছেন শ্রমিকরা।

শ্রমিকদের প্রবেশ করানো, জল খাবার দিয়ে যাতে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে তাঁদের গাড়িতে নিজস্ব যায়গায় পৌঁছানোর ব্যবস্থা করা যায়। থানায় থানায় পুলিশের সাথে যোগাযোগ করে তদারকি করে ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলোতে যাতে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে পারা যায়। এছাড়া প্রতিটি ব্লকের যে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারগুলো আছে যেখা‌নে শ্রমিকদের থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা দলের নেতৃত্ব, জনপ্রতিনিধিদের তদারকি ও পরিদর্শন দরকার বলে মনে করেন তৃণমূল এই নেতা।

এদিন তুলিনে ঝাড়খন্ড সীমান্তে ঝালদা শহর তৃণমূল ও যুব শাখার উদ্যোগে একটি শিবির চালু হয়। জয়পুর সীমান্ত এলাকা চাষ রোড একটি শিবির শুরু হয়েছে। বলরামপুর আন্তঃরাজ্য সীমান্ত এলাকাতেও তৃণমূল যুব কর্মীরা কাজ শুরু করেন। জেলা সভাপতি ও মন্ত্রীর নির্দেশে পুরুলিয়া বোকারো ধানবাদ রুটে কাঁঠালটাঁড় গ্রামে তৃণমূল কংগ্রেসের শিবির তৈরি হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here