দিল্লির সতর্ক নজরে সন্দেশখালি রাজ্যপালের কথায় স্পষ্ট ইঙ্গিত

দিল্লির সতর্ক নজরে সন্দেশখালি রাজ্যপালের কথায় স্পষ্ট ইঙ্গিত

আমাদের ভারত ডেস্ক,১০ মে:”মমতা যা বলছেন বলুন ,আমি যা বলার প্রধানমন্ত্রীকে বলেছি” সন্দেশখালি পরবর্তী রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে মোদীর সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের এমনটাই বললেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। আর সোমবার এটাও স্পষ্ট হয়ে গেছে দিল্লির সর্বোচ্চ অলিন্দে বহুল চর্চিত বিশয় সন্দেশখালি। অর্থাৎ দিল্লির সতর্ক নজরে সন্দেশখালি।

জানা গেছে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর সঙ্গে বৈঠক করে সন্দেশখালি সম্পর্কে বিশদে জেনেছেন প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী। আবার সেই দিনই অমিত শাহের সঙ্গে অজিত দোভালের বৈঠকেও পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে খবর। মোদীর পরে অমিত শাহের সঙ্গেও রাজ্যপালের কথা হয়েছে বলেও জানা গেছে।

যদিও সোমবার রাজ্যপাল প্রধানমন্ত্রী বৈঠক পূর্ব নির্ধারিত ছিল কিন্তু সন্দেশখালি কাণ্ডের পর প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে রিপোর্ট দিতে গিয়ে সেই ঘটনা যে উঠেছে তার রাজ্যপালের কথায় স্পষ্ট। জানা গেছে রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে ৪৮ পাতার একটি রিপোর্ট দিয়েছেন রাজ্যপাল।

সন্দশখালি নিয়ে রাজ্যপাল যে দিল্লিতে বলবেন তির সম্ভাবনা শুরু হয়েছিল রবিবার থেকেই। সোমবার প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক এ ঢোকার আগে রাজ্যপাল বলেছেন, সন্দেশখালির প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী জানতে চাইলে নিশ্চয়ই জানাবেন তিনি। বৈঠক শেষ হওয়ার পরে সেটাই স্পষ্ট হয়েছে। রাজ্যপালের কথায় বৈঠক শেষে কেশরী নাথ বলেছেন, “মমতার যা বলছেন বলুনআমি যা বলার প্রধানমন্ত্রী কে বলেছি। ”

এদিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর সঙ্গে দোভালের বৈঠক নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা। কারণ দেশের আভ্যন্তরীণ পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার মাধ্যে সন্দেশখালি কান্ড এবং পশ্চিমবঙ্গের আভ্যন্তরীণ পর পরিস্থিতি তথা নির্বাচন পরবর্তী হিংসার প্রসঙ্গ উঠেছে বলে খবর। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই বাংলার পরিস্থিতির উপর দিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক তথা দোভালের নজর সতর্ক নজর পড়েছে। আর দোভালকে এই বিষয়ে নজর দিতে বলার পেছনে নিশ্চিত ভাবেই রয়েছে কোনো বড়সড় ইঙ্গিত।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

six + 15 =