৫৫ হাজার টাকায় লরি ভাড়া করে বাড়ি ফিরেও গ্রামে ঢুকতে পারলেন না ১২ জন পরিযায়ী শ্রমিক

স্বরূপ দত্ত, উত্তর দিনাজপুর, ১৪ মে: সরকারি সাহায্য ছাড়াই ব্যাক্তিগত উদ্যোগে প্রায় ৫৫ হাজার টাকা দিয়ে লরি ভাড়া করে এসে গ্রামবাসীদের বাধায় গ্রামে ঢুকতে পারলেন না গুঞ্জরিয়ার ১২ জন পরিযায়ী শ্রমিক।
পঞ্চায়েতের উদ্যোগে আপাতত তাদের ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে রেখে অভুক্ত পরিযায়ী শ্রমিকদের খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। পঞ্চায়েতের তরফ থেকে পুলিশ প্রশাসন এবং স্বাস্থ্য দপ্তরকে জানানো হয়। দীর্ঘক্ষণ রাস্তার ধারে থাকার পর তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর তাদের গ্রামে ঢোকার অনুমতি দেবেন বাসিন্দারা। আপাতত তাদের হোম করোন্টাইনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হবে বলে পঞ্চায়েতের তরফ থেকে জানানো হয়েছে।

উত্তর দিনাজপুর জেলার ইসলামপুর থানার গুঞ্জরিয়া গ্রামের ১২ জন বাসিন্দা মুম্বাইয়ের হোটেলে রাধুনির কাজ করতে গিয়েছিলেন। লকডাউনের কারণে হোটেল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চরম সমস্যায় পড়েন এই পরিযায়ী শ্রমিকরা। সরকারের কাছে বিভিন্নভাবে আবেদন নিবেদন করেও তাদের গ্রামে ফেরার ব্যবস্থা না করায় বাধ্য হয়েই তারা লরি ভাড়া করে মুম্বাই থেকে রওনা হন। আজ দুপুরে তারা গুঞ্জরিয়ায় এসে পৌছান। স্থানীয় পঞ্চায়েত এবং স্বাস্থ্য কর্মীদের না জানিয়ে তারা গ্রামে পৌছে যান। পরিযায়ী শ্রমিকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা না করে গ্রামে পৌছে যাওয়ার ঘটনায় গ্রামবাসীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। গ্রামবাসীরা তাদের গ্রামে ঢুকতে বাধা দেন।

বিষয়টি পঞ্চায়েতের প্রতিনিধিকে জানালে উপ প্রধান সহ গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌছায়। মুম্বাই থেকে আসা পরিযায়ী শ্রমিকদের তৎক্ষনাৎ তাদের ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে নিয়ে যান। পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে পরিযায়ী শ্রমিকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার জন্য স্থানীয় বিডিও, বিএমওএইচ এবং ইসলামপুর থানার আইসিকে খবর দেওয়া হয়। অভুক্ত পরিযায়ী শ্রমিকদের পঞ্চায়েতের তরফ থেকে খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। বেশ কিছুক্ষণ পর পরিযায়ী শ্রমিকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।

গুঞ্জরিয়া পঞ্চায়েত উপপ্রধান মহঃ হুদা জানিয়েছেন, মুম্বাই থেকে ফেরা ১২ জন শ্রমিকের স্বাস্থ্য পরীক্ষা পর তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here