উত্তরবঙ্গে পর্যটকদের আকর্ষণ বাড়াতে তিনদিন ধরে নানান অনুষ্ঠান, বাড়তি গুরুত্ব শিলিগুড়ি টাউন স্টেশনকে

আমাদের ভারত, শিলিগুড়ি, ২৪ সেপ্টেম্বর: শিলিগুড়ির প্রথম রেলস্টেশন হলো টাউন স্টেশন। এই স্টেশনের সাথে জড়িয়ে আছে নানান ইতিহাস। এখানে গান্ধীজি থেকে শুরু করে রবীন্দ্রনাথ, নেতাজী, বাঘাযতীন, যতীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় সহ আরও অনেকে এসেছেন। কিন্তু এই ইতিহাস নবীন প্রজন্মের কাছে অজানা। শুধু তাই দেশ-বিদেশের যেসকল পর্যটক আসেন তারাও জানে না।

বর্তমানে ওই স্টেশনটি বেহাল অবস্থায় রয়েছে। সন্ধ্যার পর সেখানে দুষ্কৃতীদের আড্ডা বসে। ঐতিহাসিক এই রেলস্টেশনকে রক্ষণাবেক্ষণের কোনও দায়িত্ব রেল নেয়নি। তা নিয়ে শহরের প্রবীণ নাগরিকদের মধ্যে যথেষ্ট ক্ষোভ রয়েছে। এমনকি এই স্টেশনে টয় ট্রেন থামে না। অথচ একটা সময় এখান থেকেও টয় ট্রেন ছেড়েছে। তাই এই ঐতিহাসিক স্টেশনকে বাঁচাতেই উদ্যোগী হলো পর্যটন সংস্থা অ্যাসোসিয়েশন ফর কনজারভেশন অ্যান্ড ট্যুরিজম। এপ্রসঙ্গে সাংবাদিক সম্মেলনও করা হয় সংস্থার পক্ষ থেকে।

সংস্থার আহ্বায়ক রাজ বসু বলেন, উত্তরবঙ্গে পর্যটকদের আকর্ষণ বাড়াতে তিনদিন ধরে নানান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। তবে বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে শিলিগুড়ির ঐতিহ্যবাহী টাউন স্টেশনকে। বিশ্ব পর্যটন দিবসের দিন থেকে টাউন স্টেশনকে রক্ষা করা নিয়ে একটা কর্মসূচি নেওয়া হচ্ছে। গোটা বিষয়টি রেলের সাথে আলোচনা করেই করা হচ্ছে। এমনকি সন্ধ্যার পর যে আখড়া বসে তাও বন্ধ করা হবে। আমরা সংস্কৃতিমনস্ক সকলকে আবেদন করব তারা যাতে সপ্তাহে একদিন ওই স্টেশনে কোনও অনুষ্ঠান করেন। সোমবার আমরা ওই স্টেশনেই বিশ্ব পর্যটন দিবস পালন করব। গোটা স্টেশন আমরা পরিষ্কার করব। আগামীতে এই স্টেশনেও যাতে টয় ট্রেন দাঁড়ায় তার আবেদন রেলের কাছে করা হবে।

এদিকে কোভিড পরিস্থিতির পর উত্তরবঙ্গের পর্যটন কেন্দ্রের তালিকায় পর্যটকদের এখন প্রথম পছন্দ হোম স্টে। বর্তমানে উত্তরবঙ্গে মোট ১৬৯৩ টি হোম স্টে রয়েছে। জানা গেছে, গত ২০১৪-১৯ পর্যন্ত গত পাঁচ বছরে এই হোম স্টের সংখ্যা বেড়েছে কয়েক গুণ। এখন হোম স্টেকে কেন্দ্র করে পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে কয়েক লক্ষ মানুষের রুজি-রুটি চলছে। একই সাথে জানা গিয়েছে, চলতি পর্যটন মরশুমে ইতিমধ্যে গ্রামীণ পর্যটন কেন্দ্রে হোম স্টে প্রায় ৯০ % বুকিং সম্পূর্ণ হয়ে গিয়েছে। যেখানে অন্যান্য পর্যটনকেন্দ্র হোটেলের বুকিং মাত্র ৪৩ % হয়েছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here