করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে শামিল বিভিন্ন সংস্থা ও ব্যক্তি

আমাদের ভারত, পূর্ব মেদিনীপুর, ১৯ এপ্রিল : দেশজুড়ে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়েছে বিভিন্ন জায়গায়। কারোনার সংক্রমণ রুখতে দেশজুড়ে জারি করা হয়েছে লকডাউন। আর এই লকডাউনের ফলে সমস্যায় পড়েছেন বিভিন্ন মানুষ। খাওয়া-দাওয়ার থেকে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হয়েও সবাই মিলে করোনার সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই চালাচ্ছেন নিজের মতো করে। অধিকাংশ মানুষই গৃহবন্দি। বহু মানুষের রুজিরুটি বন্ধ। এই লড়াইয়ে মানুষই মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে। কেউ ত্রাণ দিয়ে অসহায় মানুষকে সাধ্যমত খাওয়ার তুলে দিচ্ছেন। আবার কেউ বা রাস্তাঘাটে ছবি এঁকে এই যুদ্ধে শামিল হওয়ার ডাক দিয়েছেন। কেউ সংস্থাগত ভাবে আবার কেউ ব্যক্তিগতভাবে প্রাণ দিয়ে সাহায্য করছেন বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন মানুষকে।

তমলুকের নকিবসান গ্রামে ৯৬ বছর বয়সের নর্মদা চরণ মান্না নামে এক প্রবীণ ব্যক্তি ও তার পুত্ররা গ্রামের গরিব খেটে খাওয়া ৬০ টি পরিবারের হাতে তুলে দিয়েছেন চাল, ডাল, তেল সহ বিভিন্ন সামগ্রী। এই লকডাউনে কাজ হারা পরিবারগুলি খুশি দুঃসময়ে এই উপহার পেয়ে।
কোলাঘাটের বাথানবেড়িয়া, পাঁশকুড়ার রাতুলিয়ায় রেড ভলান্টিয়ারের সদস্যরা এলাকার মানুষদের করোনার সংক্রমণ রোখার ব্যাপারে সচেতন করেন। এবং দুঃস্থ মানুষদের হাতে মাস্ক সাবান সহ কিছু খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন।

তমলুকের ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে স্থানীয় সিংহ পরিবারের উদ্যোগে রাস্তায় বিভিন্ন স্লোগান লিখে মানুষকে গৃহবন্দি থাকার অনুরোধ জানানো হয় এবং সংক্রমণের ব্যাপারে সচেতন করা হয়। তাজপুরের এক হোটেল ব্যবসায়ী শান্তনু সাহা এবং তাঁর স্ত্রী নিজে হাতে লিকুইড সোপ তৈরি করে ৬০ লিটার লিকুইড সোপ পাউসি অন্ত্যোদয় অনাথ আশ্রমের মান্দারমনি শাখার আবাসিকদের ব্যাবহারের জন্য তুলে দেয়। এছাড়াও জেলা জুড়ে বহু সংস্থা ও ব্যক্তি বিভিন্নভাবে ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন বিভিন্ন জায়গার গরিব মানুষদের জন্য।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here