বিজেপি কর্মীকে মারধরের ঘটনায় তৃণমূল নেতা শঙ্কর আঢ্যের গ্রেফতারের দাবিতে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ

আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ১২ জুন: বিজেপি কর্মীকে মারধর করে রাস্তায় ফেলে দেওয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত তৃণমূল নেতাকে গ্রেফতারের দাবিতে উত্তাল হয়ে উঠল উত্তর ২৪ পরগণার বনগাঁ মহকুমা। শুক্রবার সকাল থেকে পাঁচটি এলাকায় অবরোধ করে বিজেপি সমর্থকরা। তারা আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখায়। এদিন বনগাঁ মহকুমার বনগাঁ বাটার মোড়, বাগদার সিন্দ্রানী, গোপালনগর থানার নহাটা, গাইঘাটা থানার জ্বলেশ্বর মোড় ও ঝাউডাঙ্গা এলাকায় অবরোধ ও বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। পুলিশ এসে অবরোধ তুলে গেলে কোথাও কোথাও পুলিশের সঙ্গে অবরোধকারীদের ধস্তাধস্তি হয়।

বৃহস্পতিবার সকালে জনবহুল এলাকায়, বনগাঁ থানা থেকে ২০০ গজের মধ্যে এক বিজেপি কর্মীকে প্রায় ৪৫ মিনিট ধরে রাস্তায় ফেলে বেধড়ক মারধর করে দুষ্কৃতিরা। এরপর তাঁকে রাস্তায় ফেলে পালিয়ে যায়। অভিযোগ, বনগাঁ পৌরসভার তৃণমূলের প্রাক্তন চেয়ারম্যান শঙ্কর আঢ্যের অনুগামীরা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত ছিল। এ ব্যাপারে গতকালই তারা বনগাঁ থানায় অভিযোগ জানিয়েছিল। বনগাঁ থানার আইসি তাঁদের আশ্বাস দেয় ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করবে। কিন্তু ২৪ ঘন্টা পার হয়ে গেলেও এখনও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি বনগাঁ থানার পুলিশ। এর ফলে আজ সকাল থেকে উত্তাল হয়ে ওঠে বনগাঁ মহকুমা। এদিন সকাল থেকে মহকুমার পাঁচটি থানা এলাকায় অবরোধ শুরু হয়। কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে এলাকা।

বিজেপির নেতা দেবদাস মণ্ডল, হরিশঙ্কর সরকার বলেন, বনগাঁর মাফিয়া শঙ্কর আঢ্য তাঁর লোকজন দিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টির কর্মী সুতনু দেবনাথকে খুন করার চেষ্টা করেছে। এর আগেও শঙ্কর আঢ্য বহু মানুষের ঘর বাড়ি কেরে নিয়ে ভিটে ছাড়া করেছে। অভিলম্বে শঙ্কর আঢ্য ও তাঁর অনুগামীদের গ্রেফতার না করলে, আগামী কাল গোটা জেলা স্তব্ধ করে দেব। অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে বনগাঁ থানার পুলিশ।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here