এক গ্রামবাসীর করোনা ধরা পড়েছে, প্রতিবেশীরা গ্রামে ঢুকতে দিল না সরকারি অ্যাম্বুলেন্স ও গ্যাসের গাড়ি

স্নেহাশীষ মুখার্জি, আমাদের ভারত, নদিয়া, ৫ আগস্ট:
বাড়িতে পরিবারের এক সদস্যের করোনা হয়েছে। তাই গ্রামবাসীরা আতঙ্কে সরকারি অ্যাম্বুলেন্সকে ফিরিয়ে দিল। এমনকি গ্যাসের গাড়িও করোনা রোগীর বাড়ির সামনে থেকে ফেরত পাঠাল গ্রামবাসীরা। কৃষ্ণগঞ্জ থানার জয়ঘাটা মনোহরপুর গ্রামের ঘটনা।

জানাগেছে, কৃষ্ণগঞ্জের জয়ঘাটা মনোহরপুর গ্রামে এক ব্যক্তি সম্প্রতি ব্যাঙ্গালোর থেকে এসেছিলেন। সরকারি নিয়ম মাফিক তাকে সোয়াব টেস্ট করতে বলা হয়। গত ৩০ জুলাই কৃষ্ণগঞ্জ গ্রামীণ হাসপাতালে তিনি সোয়াব টেস্টের উদ্দেশ্যে যান। সেখানে তার লালা রস সংগ্রহ করা হয়। গতকাল নদিয়া স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে তার রিপোর্ট আসে করোনা পজিটিভ। সেই মতন তাকে বাড়ি থেকে স্বাস্থ্য দপ্তর গাড়ি পাঠিয়ে কৃষ্ণনগর বাহাদুরপুর আইটিআই কলেজে কোয়ারেন্টাইন করে। পাশাপাশি পরিবারের বাকি ১৩ জন সদস্যকে নদিয়া স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে সোয়াব টেস্টের জন্য কৃষ্ণগঞ্জ গ্রামীণ হাসপাতালে যোগাযোগ করতে বলা হয়।

অভিযোগ, আজ সকালে যখন সরকারি অ্যাম্বুলেন্স ওই করোনা আক্রান্ত বাড়ির সদস্যদের নিতে আসে তখন গ্রামবাসীরা আতঙ্কে সরকারি অ্যাম্বুলেন্সকে ফিরিয়ে দেয়। অভিযোগ, গ্যাসের গাড়িও করোনা রোগীর বাড়ির সামনে থেকে ফেরত পাঠায় গ্রামবাসীরা। এরপরই করোনা আক্রান্ত পরিবারের সদস্যরা বাইকে, বাইসাইকেলে কৃষ্ণগঞ্জ গ্রামীণ হাসপাতালে পৌঁছায় সোয়াব টেস্টের জন্য। করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির অভিযোগ, যদি প্রতিবেশীরা আমাদের সাথে এরকম ব্যবহার করে তাহলে আগামী দিনে আমরা বাঁচবো কি করে। আমরা দিন আনি দিন খাই, কিভাবে চলবে আমাদের সংসার? চাল, ডাল ঘরে কিছু নেই, আমরা কিভাবে খাব? বাড়িতে গ্যাসের সিলিন্ডারও ঢোকাতে দিল না। আমরা রান্না করব কি করে? পরিবারের সদস্যরাও যথেষ্ট আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here