রামমন্দিরের শিলান্যাসে ভূমিপুজোর জন্য রাজ্যের ১০ জায়গার জল-মাটি গেল অযোধ্যায়

রাজেন রায়, কলকাতা, ৩১ জুলাই: ৫ আগস্ট অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণের ভূমিপুজোর পর মন্দিরের শিলান্যাস করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মন্দির নির্মাণে দেশের নানা প্রান্তের হিন্দু দেবস্থানের জল ও মাটি ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে রাজ্যের ১০ জায়গার দেবস্থানের পূণ্য জল-মাটি।

রাজ্যের কোথা কোথা থেকে জল ও মাটি পাঠানো হয়েছে? জানা গিয়েছে, উত্তরবঙ্গের জলপাইগুড়ির অন্যতম শিবতীর্থ জল্পেশের জল ও মাটি গিয়েছে অযোধ্যায়। নবদ্বীপ ধামের প্রাচীন মায়াপুর ও ভাগীরথী থেকেও জল ও মাটি পাঠানো হয়ে়ছে। হুগলির ত্রিবেণী, শিলিগুড়ি, কোচবিহার, বীরভূমের তারাপীঠ, কালীঘাট, দক্ষিণেশ্বর, কলকাতার ভূতনাথ মন্দির এবং গঙ্গাসাগরের জল ও মাটি পাঠানো হয়েছে রাম মন্দির তৈরির কাজে।

কোচবিহারের মদনমোহন বাড়ি, গোঁসানিমারি মন্দির চত্বরের মাটি নেওয়া হয়েছে। তোর্সা ও সাগরদিঘির জলও নিয়ে যাওয়া হয়েছে অযোধ্যায়। তারাপীঠের জীবিত কুণ্ডের জল, দ্বারকা নদীর জল ও তারাপীঠের মহাশ্মশানের জল পাঠানো হয়েছে অযোধ্যায়।

রাম জন্মভূমি ট্রাস্টের তরফে জানানো হয়েছে যে, বারণসীর পুরোহিতরা ভূমি পুজো করবেন। এই পুজোয় থাকবেন অযোধ্যার পুরোহিতরাও। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের তরফে জানানো হয়েছে, ৫ আগস্ট শিলান্যাস অনুষ্ঠান চলবে সকাল সাড়ে ১১টা থেকে বেলা সাড়ে বারটা পর্যন্ত। রাম মন্দিরের শিলান্যাস পর্ব সম্প্রচারিত হবে দূরদর্শনে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here