জল কষ্ট পুরুলিয়ার জয়পুরে, উদাসীন প্রশাসন

সাথী প্রামানিক, আমাদের ভারত, পুরুলিয়া, ২৪ এপ্রিল: পুরুলিয়ায় গ্রীষ্মের চালচিত্র বদলায়নি। পানীয় জল নিয়ে সমস্যা রয়েই গিয়েছে। গভীর নলকূপ তেমন নেই। নলকূপ আছে তো নেই জল। কোথাও আবার রয়েছে অকেজো নলকূপ। গ্রীষ্ম পড়তেই পুরুলিয়া জেলার বেশ কয়েকটি এলাকার সঙ্গে জয়পুরের ব্লক সদর এলাকায় জল কষ্ট দেখা দিয়েছে। দেউলঘাটার কাছে কাঁসাই নদী থেকে নলবাহিত পরিশ্রুত পানীয় জল সরবরাহ করে জন স্বাস্থ্য কারিগরি দফতর। গত কয়েক মাস ধরে নলবাহিত জল অপ্রতুল। কোথাও কোথাও জল সরবরাহ বন্ধ রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে। কারণ জানতে
পারেননি জয়পুরবাসী। পরিবর্ত ব্যবস্থা না থাকায় চরম সমস্যার মুখে পড়েছেন বাসিন্দারা। যে দু’একটি রাস্তার কলে কিছুক্ষণের জন্য জল পড়ে তা স্থানীয়দেরই কুলোয় না। দূর থেকে গিয়ে জলের পাত্র নিয়ে ওই কলগুলিতে ভিড় জমান অন্যান্য মহল্লার বাসিন্দারা। 

লকডাউন চলায় বেশি মানুষের জমায়েত করতে দিচ্ছে না পুলিশ। সামাজিক দূরত্ব এবং মাস্ক পরার কোনও বালাই নেই। পানীয় জলের সঙ্গে সেখানে প্রকট হয়েছে প্রশাসনের নির্দেশ উপেক্ষা করার সমস্যাও। দাবি উঠেছে এলাকা ভিত্তিক পানীয় জলের ব্যবস্থার। 


     
স্থানীয় বাসিন্দা তথা জয়পুরের পঞ্চায়েত প্রধান অপর্ণা বাদ্যকর নলবারি তো জলের সমস্যা নিয়ে কিছুই জানেন না বলে এদিন জানান। স্থানীয় বাসিন্দা হওয়ার দরুণ তিনি অবশ্য স্বীকার করেছেন গ্রীষ্মে এই এলাকায় জলের সমস্যা প্রকট হয় এমনকি হাহাকারও দেখা দেয়। সমস্যা দীর্ঘদিনের জানা সত্ত্বেও সমস্যা সমাধানের কোনো উদ্যোগ নেননি তিনি। 

তবে, বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জয়পুর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি বিন্দু কর্মকার। তিনি বলেন, লকডাউন চলায় একটু সমস্যা হচ্ছে। ৬ মে বিডিওর সঙ্গে একটি প্রশাসনিক বৈঠক করব। সেখানে এই সমস্যা নিয়ে একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এদিন পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি অবশ্য জল চুরির অভিযোগ করে বলেন, বাড়িতে বাড়িতে জল চুরি রুখতে আমরা সতর্ক করেছিলাম। 

পানীয় জল নিয়ে স্থায়ী সমাধানের কেউ আশ্বাস দিতে পারেননি। এই সমস্যা থেকে মুক্তি কি পাবেন না জয়পুরবাসী? হতাশা নিয়ে প্রশ্ন ভুক্তভোগী বাসিন্দাদের।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here