মহারাষ্ট্র উদ্যোগ নিলেও রাজ্যের অনীহায় বাড়ি ফেরা হল না বাংলার পরিযায়ী শ্রমিকদের

আমাদের ভারত, ৬ মে: লক ডাউনের কারণে দীর্ঘদিন আটকে থাকার পরে সরকারের উদ্যোগে বাড়ি ফেরা শুরু করেছে ভিন রাজ্যে আটকে থাকা হাজার হাজার পরিযায়ী শ্রমিকরা। এরমধ্যে মহারাষ্ট্র সরকার উদ্যোগ নিলেও বাংলার পরিযায়ী শ্রমিকরা বাড়ি ফিরতে পারলেন না। আটকে পরে থাকলেন তারা সেখানেই। একটি জাতীয় স্তরের দৈনিকের প্রতিবেদন অনুযায়ী রাজ্যের অনীহার জন্যই বাড়ি ফেরা হলো না মহারাষ্ট্রে আটকে থাকা বাংলার পরিযায়ী শ্রমিকদের।

লক ডাউনে ভিন রাজ্যে আটকে পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরানোর জন্য যারা সবচেয়ে বেশি সাওয়াল করেছিলেন তার মধ্যে অন্যতম ছিল পশ্চিমবঙ্গের সরকার। কিন্তু মহারাষ্ট্রের আটকে থাকা বাংলার শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনার ক্ষেত্রে সরকারের অনীহা দেখা গেছে বলে অভিযোগ। ইংরেজি ওই দৈনিকের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মহারাষ্ট্রে আটকে থাকা বাংলা শ্রমিকদের ফেরাতে অনুমতি দিতে অনীহা প্রকাশ করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার।

রাজ্য সরকারের এই আচরণে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে মহারাষ্ট্রের প্রশাসন। মহারাষ্ট্রের থানে থেকে ২৪০০ পরিযায়ী শ্রমিক দুটি ট্রেনে হাওড়ার শালিমার স্টেশনে ফেরার কথা ছিল। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গ সরকার এই মহারাষ্ট্রের শ্রমিকদের ফেরাতে তৎপরতা দেখায় নি বলে অভিযোগ । ফলে শ্রমিকদের হাতে টিকিট দিতে পারেননি আধিকারিকরা।

সারাদেশের মধ্যে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ সর্বাধিক বেশি ছড়িয়েছে মহারাষ্ট্রে। আর এই পরিস্থিতিতে সেখান থেকে পরিযায়ী শ্রমিকদের রাজ্যে ফেরালে সংক্রমনের সম্ভাবনা আরো বাড়বে। সেই আশঙ্কা থেকেই অন্য রাজ্য থেকে পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরালেও মহারাষ্ট্র থেকে পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরাতে তৎপরতা দেখায়নি রাজ্য সরকার বলে মনে করা হচ্ছে।

করোনা মোকাবেলায় লকডাউন ঘোষণার পরই পরিযায়ী শ্রমিকরা আটকে পড়েছিলেন দেশের বিভিন্ন রাজ্যে। এই পরিস্থিতিতে বাংলার পরিযায়ী শ্রমিকদের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। গত পাঁচ দিন ধরে গোটা দেশে কেন্দ্রের উদ্যোগে বিভিন্ন রাজ্য থেকে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চালিয়ে পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। রাজস্থান, কেরল থেকে দুটি ট্রেন পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে রাজ্যে ফিরেছে। তাদের শারীরিক পরীক্ষার পর তাদের গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু মহারাষ্ট্র থেকে পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরাতে কোন তৎপরতা দেখায়নি পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত ঝুলিয়ে রেখেছে রাজ্য সরকার বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

অথচ মহারাষ্ট্রে পড়ে থাকা বাংলার পরিযায়ী শ্রমিকরা অপেক্ষা করে বসে আছে রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্তের দিকে চেয়ে।

তবে শুধু পশ্চিমবঙ্গই নয়, উত্তর প্রদেশের সরকারের মধ্যেও মহারাষ্ট্রে আটকে থাকা সে রাজ্যের পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরত নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে অনীহা দেখিয়েছিল। তবে কেন্দ্রের চাপে পড়ে তারা এবিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়। বিহার সরকারও পরিযায়ী শ্রমিকদের যে সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছিল তা থেকে পিছিয়ে আসতে দেখা যাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে ।

মহারাষ্ট্রে সাড়ে পনেরো হাজারের ওপর মানুষ করোনা আক্রান্ত। তার মধ্যে ৬০০ ওপর মৃত্যু হয়েছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here