গম বোঝাই ট্রাক্টর আটকে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের, রেশন ডিলারের বিরুদ্ধে গম পাচারের অভিযোগ

আশিস মণ্ডল, আমাদের ভারত, বীরভূম, ১৯ নভেম্বর: রেশনের সামগ্রী পাচার করার আগেই হাতেনাতে ধরে ফেললেন গ্রামবাসীরা। যদিও রেশন ডিলারের দাবি আটক করা গম রেশনের নয়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ব্লক প্রশাসন এবং খাদ্য দফতর। ঘটনাস্থলে মুরারই থানার পুলিশ।

ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের মুরারই ১ নম্বর ব্লকের রাজগ্রাম পঞ্চায়েতের ঢুড়িয়া বহরাগাছি গ্রামে। ওই গ্রামের ডিলার দেব নারায়ণ ভকত শুক্রবার ট্রাক্টরে গম বোঝাই করে অন্যত্র নিয়ে যাচ্ছিলেন। সেই সময় গ্রামবাসীরা ট্রাক্টরটি আটকে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। তাদের অভিযোগ, রেশন ডিলার উপভোক্তাদের সামগ্রী কম দেন। মাসের শেষের দিকে উদ্বৃত্ত গম ঝাড়খণ্ডে বিক্রি করে দেন। শুক্রবার সকালে প্রথম বিষয়টি নজরে আসে পঞ্চায়েত সদস্যার স্বামী অজয় কুমার সাহার। তিনিই গ্রামবাসীদের ডেকে একটি ট্রাক্টর আটকে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন।

অজয়বাবু বলেন, “এদিন দেখি রেশনের গম ট্রাক্টরে বোঝাই করা হচ্ছে। আমি ডিলারের কাছে জানতে চাই সামগ্রী কোথায় যাবে। ডিলার আমাদের মিথ্যা কথা বলেন। এরপরেই আমরা ট্রাক্টর আটকে পুলিশকে খবর দিই”।

গ্রামের বাসিন্দা শুভম সাহা, অরূপ সাহারা বলেন, “এই এলাকাটি আদিবাসী অধ্যুষিত। ফলে ডিলার তাদের অজ্ঞতার সুযোগ নিয়ে ওজনে কম পরিমানে আটা, গম দেন। এদিন সকালে আমরা একটি ট্রাক্টর হাতেনাতে ধরেছি। তিনটি ট্রাক্টর তার আগে পালিয়ে গিয়েছে”।

মুরারই ১ নম্বর ব্লকের বিডিও প্রণব চট্টোপাধ্যায় বলেন, “খবর পেয়ে গ্রামে ব্লকের প্রতিনিধি পাঠানো হয়েছে। ব্লকের খাদ্য দফতরের আধিকারিকরা গিয়েছেন। সঙ্গে রয়েছে মুরারই থানার পুলিশ। তদন্তে গম পাচারের অভিযোগ প্রমাণিত হলে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে”।

ডিলার দেব নারায়ণ ভকত বলেন, “আমার আড়ত রয়েছে। সেখানে আমি বাইরে থেকে গম কিনে ব্যবসা করি। ট্রাক্টরে আটক হওয়া গম আমার আড়তের। রেশনের গম নয়। প্রশাসন তদন্ত করে দেখুক”।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here