পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় এলে ক্লাব, ইমামদের টাকা দেব না, মানুষের জন্য কাজ করব : সায়ন্তন বসু

সাথী দাস, পুরুলিয়া, ১৩ জুন: ‘পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় এলে ক্লাব, ইমাম, মেলা, উৎসবে টাকা দেব না। মানুষের জন্য আমরা কাজ করব।’ পুরুলিয়ায় এই ভাবেই প্রত্যয়ের সঙ্গে আগাম জানালেন বিজেপি রাজ্য কমিটির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। শনিবার, মোদি সরকারের এক বছর পূর্ণ এবং বর্তমান পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে মুখোমুখি হয়ে রাজ্য সরকারের ভূমিকা নিয়ে সরব হলেন বিজেপি এই রাজ্য নেতা। তিনি বলেন, ‘রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সরকারের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেছেন। আমরা যদি ক্ষমতায় আসি পশ্চিমবঙ্গের আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রেখে আয়ুষ্মান ভারত বলুন, কৃষক সম্মান নিধি বলুন, রাজ্য সরকারের বকেয়া ডিএ বলুন, এগুলোর সব ব্যবস্থা করব।’

সাংসদ তথা রাজ্য কমিটির অন্যতম সাধারণ সম্পাদক জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো জেলা সভাপতিকে সঙ্গে নিয়ে সায়ন্তন বসু কোভিড ১৯ এর পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্যের ভূমিকা নিয়ে তীব্র সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গ সরকার মাত্র ১০৫টি ট্রেনের দাবি করেছিল বিভিন্ন রাজ্যের আটকে থাকা শ্রমিকদের বাড়ি ফেরানোর জন্য। অথচ, রাজ্যের বাইরে ৪৫ লক্ষ শ্রমিক রয়েছেন। শ্রমিকদের একটি নামও রেলের কাছে পাঠায়নি রাজ্য। রাজ্যে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে গাদাগাদি করে শ্রমিকদের রেখেছে রাজ্য সরকার। এতে অন্যান্য রোগের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তেই পারে।’ এই প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের প্রশংসা করেন বিজেপির এই রাজ্য নেতা। তিনি বলেন,  ‘নরেন্দ্র মোদীজির নেতৃত্বে সরকার সঠিক সময়ে প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নেওয়ার ফলে আমাদের দেশটা আজ ইতালি আমেরিকা হয়ে যায়নি। অথচ, জনঘনত্বের দিক থেকে সেটা হতেই পারতো।’

কেন্দ্রের কাছে পশ্চিমবঙ্গ  সরকারের ৫৩ হাজার কোটি টাকা বকেয়ার দাবি প্রসঙ্গ টেনে রাজ্যের বিরুদ্ধে কঠোর সমালোচনা করেন সায়ন্তন বসু। তিনি বলেন,’মনমোহন সিং সরকারের ১০ বছরে দু লক্ষ কোটির কম টাকা রাজ্যকে দিয়েছিল। সেখানে ২০১৪ থেকে ২০১৯ পর্যন্ত পাঁচ বছরে এই রাজ্যকেই নরেন্দ্র মোদি সরকার ৪ লক্ষ ৪৮ হাজার ২১৪ কোটি টাকা দিয়েছে। যেখানে আগে রাজ্য শতকরা ৩২ শতাংশ রাজস্ব বাবদ পেত, বর্তমানে তা ৪২ শতাংশ পায় সব রাজ্যের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গও।’

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here