জাতীয়

মহারাষ্ট্রে মুখ্যমন্ত্রী পদ না দিলে এনডিএ ছাড়বে শিবসেনা

আমাদের ভারত, ৮ নভেম্বর:মহারাষ্ট্রের সরকার গঠন নিয়ে বিজেপির শিবসেনার সম্পর্কের মধ্যে নতুন টুইস্ট। লাগাতার ঠান্ডা যুদ্ধে মেতেছে শিবসেনা এবং বিজেপি। তার মধ্যেই উঠে এলো এক নতুন দিক। সূত্রের খবর বিজেপি যদি শিবসেনার চাহিদা পূরণ না করে, তাহলে শিবসেনা বিজেপি নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল ডেমোক্রাটিক অ্যালায়েন্স বা এনডিএ ছেড়ে দেওয়ার কথা ভাবছে।

একটি জাতীয় স্তরের সংবাদপত্রের প্রতিবেদন অনুযায়ী, শিবসেনার শীর্ষ নেতৃত্বের সূত্রের খবর, বিজেপি যদি শিবসেনার ৫০-৫০ ফর্মুলা ন মানে, তাহলে শিবসেনা এনডিএ বেরিয়ে আসতে পারে এবং সরকার গঠনের অন্য যে অন্য বিকল্প রয়েছে সেগুলোকে কাজে লাগাতে পারে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এনসিপি বলেছিল তারা শিবসেনাকে সমর্থন করবে তখনই যখন শিবসেনা এনডিএ ছেড়ে বেরিয়ে আসবে। রাজনৈতিক মহলের মতে, সম্ভবত শিবসেনা এনডিএ ত্যাগ করে এই বিকল্প রাস্তার কথাই বলতে চাইছে সরকার গঠনের লক্ষ্যে।

গত ২৪ অক্টোবর মহারাষ্ট্র বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশিত হয়। আর তার পর থেকেই শিবসেনা মেয়াদ এর অর্ধেক কাল মুখ্যমন্ত্রী পদের দাবি জানিয়ে এসেছে বিজেপির কাছে। শিবসেনা বারবারই বলেছে বিজেপি নিজের দেওয়া কথা রাখা উচিত। যে কথা অমিত শাহ ২০১৯-র লোকসভা নির্বাচনের সময় উদ্বভ ঠাকরের কাছে দিয়েছিলেন।

শিবসেনা দাবি করছে, সেই সময় দুই দল ৫০-৫০ ফর্মুলায় রাজি হয়েছিল। এর অর্থ মেয়াদের অর্ধেক সময় তাদের দল থেকে মুখ্যমন্ত্রী পদে বসবেন।

কিন্তু বিজেপি শিবসেনার এই দাবিকে নাকচ করে দিয়ে বলছে, এমন কোন কথা তাদের মধ্যে হয়নি। বিজেপি বলেছে ৫০-৫০ ফর্মুলার মন্ত্রিসভায় গঠনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।

এদিকে বিজেপি নেতা নীতিন গড়করি বলেছেন, মুখ্যমন্ত্রী পদ নিয়ে শিবসেনাকে কোন কথা দেয় নি বিজেপি। তিনি বলেন, শিবসেনার প্রতিষ্ঠাতা বাল ঠাকরের তৈরি করা নীতি অনুযায়ী মহারাষ্ট্রের বিধানসভা নির্বাচনে জোটবদ্ধ দলের মধ্যে যে সব থেকে বেশি আসন পাবে সেই পাবে মুখ্যমন্ত্রী পদ। গড়কড়ি বলেন, শিবসেনার উচিত বাল ঠাকরের নীতিকে সম্মান করা। ১৯৯৫ সালে বাল ঠাকরের এই নীতি কে মেনে নিয়েছিল দুই দল। সে বছর শিবসেনা বিজেপি তুলনায় বেশি সংখ্যক আসন লাভ করেছিল। আর সেই কারণেই ওই বছর শিবসেনা থেকেই সেই সময় মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিল।

Leave a Comment

one × 3 =

Welcome To Amaderbharat. We would like to keep you updated with the Latest News.