মহিলার গলাকাটা বিবস্ত্র দেহ উদ্ধার, ধর্ষণ করে খুনের অভিযোগ, আটক ৪

সুশান্ত ঘোষ, আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ৪ মে: এক গৃহবধূর গলার নলিকাটা বস্ত্রহীন দেহ উদ্ধার করল পুলিশ। রবিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার হাবড়া থানার ফুলতলা গ্রামে। পরিবারের লোকেদের অভিযোগ, ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ চার জনকে আটক করেছে।

পরিবার সূত্রের খবর, প্রতিদিনের মতো এদিন দুপুর আড়াইটে নাগাদ বাড়ি থেকে বছর বিয়াল্লিশের ওই মহিলা নাংলা বিলে ঘাস কাটতে গিয়েছিলেন। সন্ধ্যে গড়িয়ে গেলেও তিনি বাড়ি ফেরেননি। তখন তার ছেলে অমিত বিশ্বাস মাকে খুঁজতে বিলের ধারে যান। সেখানে ঘাসের বোঝা পড়ে থাকতে দেখেন। সন্দেহ হতেই অমিত চারদিকে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। তখন তিনি দেখেন, ঝোপের মধ্যে বিবস্ত্র অবস্থায় মায়ের গলার নলিকাটা দেহ পড়ে আছে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় হাবড়া থানার পুলিশ। পুলিশ দেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়ে দেয়। মৃতের শ্বশুর শম্ভু বিশ্বাস বলেন, ‘আমার বউমা খুব হাসিখুশি থাকত। ওর কোনও শত্রু নেই। ঝোপের মধ্যে গলার নলি কাটা অবস্থায় বউমার দেহ পাওয়া গিয়েছে। বউমাকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে।’

ঘটনায় জড়িত সন্দেহে রাতেই চার জনকে আটক করেছে হাবড়া থানার পুলিশ। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here