করোনায় মৃত্যু সন্দেহে ৭ ঘন্টা রাস্তায় পড়ে রইল মহিলার মৃতদেহ

আমাদের ভারত, হাওড়া, ২২ জুন: ছেলে করোনায় আক্রান্ত সেই সন্দেহে মহিলার মৃত্যুর পর প্রায় ৭ ঘন্টা মৃতদেহ পড়ে থাকল রাস্তায়। পরে এলাকার প্রাক্তন কাউন্সিলরের সাহায্যে পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।

জানা গেছে, বালির হপ্তাবাজারের বীরেশ্বর চ্যাটার্জি স্ট্রিটের একটি আবাসনের বাসিন্দা বছর ৫৩ এর মহিলার ছেলে গত ১৭ জুন শারীরিক অসুস্থতার কারণে হুগলির একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়। পরে ১৯ জুন তার করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে। এদিকে মহিলাও অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং সোমবার তার অবস্থার অবনতি হয়। স্থানীয় সূত্রে খবর, এদিন সকালে মহিলার স্বামী একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে হাওড়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে। এরপরেই ওই ভদ্রলোক তার স্ত্রীর মৃতদেহ নিয়ে বাড়ি চলে আসে।

এদিকে অ্যাম্বুলেন্স চালক মৃত মহিলার ছেলে করোনা আক্রান্ত এটা জানার পরেই আবাসনের সামনে রাস্তায় মৃতদেহ নামিয়ে চলে যায়। অভিযোগ এর পরেই ভদ্রলোক তার স্ত্রীর মৃতদেহ নিয়ে আবাসনে ঢুকতে চাইলেও করোনায় মহিলার মৃত্যু হয়েছে এই সন্দেহে সেখানকার আবাসিকরা বাধা দেয়। ফলে দীর্ঘক্ষণ স্ত্রীর মৃতদেহ রাস্তায় নিয়ে বসে থাকেন ভদ্রলোক। প্রায় ৭ ঘন্টা পর স্থানীয় প্রাক্তন কাউন্সিলর পুলিশে খবর দিলে বালি থানার পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।

এদিকে মহিলার মৃত্যু করোনায় হয়েছে কি না তা না জেনে কেন আবাসিকরা মৃতদেহ আবাসনে ঢুকতে বাধা দিয়েছে সেটা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। পুলিশ সূত্রে খবর, মহিলার করোনায় মৃত্যু হয়েছে কি না তা জানার জান্য তার লালা রসের নমুনা পরীক্ষা করা হবে। এছাড়া করোনা প্রটোকল মেনে মৃতদেহ দাহ করা হবে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here