এবার সরকারি কর্মীদেরও “ওয়ার্ক ফর্ম হোম”, তৈরি খসড়া প্রস্তাবও

আমাদের ভারত, ১৪ মে : করোনা ভাইরাসের পরবর্তী জীবন আমূল পাল্টে যেতে চলেছে। পরিবর্তিত হয়েছে গোটা বিশ্বের সমাজ ও অর্থনীতিও। বিশেষ করে ওয়ার্ক ফ্রম হোম বা বাড়ি থেকে কাজ করার উপরে বেশিরভাগ সংস্থার জোর দিচ্ছে এখন। এতে শুধু সোশ্যাল ডিস্টেন্স বজায় রাখা যাবে তা নয়, অফিস স্পেশের খরচা কমে যাবে। তাই করোনা পরবর্তী সময়ে এই বিরাট পরিবর্তনের শরীক হতে চলেছে কেন্দ্র সরকারের কর্মীরাও। অদূর ভবিষ্যতে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের work-from-home বা বাড়ি থেকে কাজ করা শুরু করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে কেন্দ্র।

ইতিমধ্যেই মিনিস্ট্রি অফ পার্সোনাল বা কর্মী বর্গ মন্ত্রক কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের ওয়ার্ক ফ্রম হোম চালু করার একটি খসড়া প্রস্তাব তৈরি করে ফেলেছে। এই প্রস্তাব অনুযায়ী কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের বছরে অন্তত ১৫ দিন ওয়ার্ ফ্রম হোম করবে। খসড়া প্রস্তাবে লেখা আছে কাজের জায়গায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে অদূর ভবিষ্যতে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের অফিসে উপস্থিত থাকার পরিমাণ কমানো হবে। এর জন্য প্রতিটি বিভাগে ই-অফিস চালু করতে চলেছে কর্মী বর্গ মন্ত্রক।

৭৫ টি মন্ত্রক ইতিমধ্যেই ডিজিটাল প্লাটফর্মে কাজ করা শুরু করে দিয়েছে। ৫৭ টি মন্ত্রক তাদের ৮০% কাজ করছে ই অফিসে।

খসড়া প্রস্তাবে আরও বলা হয়েছে একটি স্তরের অফিসারদের ভিপিএন দেওয়া হোক। যাতে তারা কোন সুরক্ষিত নেটওয়ার্কে ইলেকট্রনিক ফাইল গুলি দেখতে পারেন। এখনো পর্যন্ত সহ সচিব এবং উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা ভিপিএনের সুবিধা পান। তবে এ ব্যাপারে সাইবার নিরাপত্তার বিষয়টিও দেখা হচ্ছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের গাইডলাইনে বলা আছে ক্লাসিফাইড ফাইল ইন্টারনেটে কোনো ভাবেই দেখা যাবে না। তাই ক্লাসিফাইড ফাইল নিয়ে যাদের কাজ করতে হয় তাদের অফিসে গিয়েই কাজ করতে হবে কোনভাবেই বাড়িতে নয়।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here