তমলুকে দেনার দায়ে আত্মহত্যা যুবকের

আমাদের ভারতের, পূর্ব মেদিনীপুর, ১৬ অক্টোবর: দেনার চাপ সহ্য না করতে পেরে আত্মঘাতী হল এক যুবক। আত্মঘাতী যুবকের নাম গোপাল বর্মন, বয়স আনুমানিক ৩০ বৎসর। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার তমলুক থানার কাঁকটিয়া গ্রামের ঘটনা।

গোপাল বর্মন ডুমরা গ্রামে গ্রাম কমিটির কাছ থেকে একটি খাল, মাছ ধরার জন্য চার মাসের লিজ নেয়। গ্রাম কমিটির সঙ্গে এগারো লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকার চুক্তি হয় গোপালের। সেই চুক্তি মতো গোপাল বর্মন দশ লক্ষ টাকা দিয়েও দেয়। বাকি থাকা দেড় লক্ষ টাকার জন্য গ্রাম কমিটি চাপ দিতে থাকে গোপালকে। এমন কি ওই ডুমরা গ্রামে সালিশি সভা বসায় বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানা যায়। সেই সালিশি সভায় গোপালকে বাকি টাকা দেওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হয়। আজ সকালে গোপালের ঝুলন্ত দেহ দেখতে পাওয়া যায় ডুমরা গ্রামে খালের পাশে। এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

পরিবারের লোকের অভিযোগ, গ্রাম কমিটির সভায় গোপালকে বকেয়া টাকার জন্য চাপ দেওয়া হয়। তার ফলে গোপাল বর্মন আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়।

তবে গ্রাম কমিটির তরফে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। গ্রাম কমিটির বক্তব্য, গোপাল বকেয়া টাকা দীর্ঘদিন ধরেই দেয়নি। ধার শোধ করার কথা বলা হলেও সে ভাবে কোনও চাপ দেওয়া হয়নি।

তমলুক থানার পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে তমলুক জেলা হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে তমলুক থানার পুলিশ। তবে এখনও মৃত যুবকের পরিবারের পক্ষ থেকে কারো বিরুদ্ধে তমলুক থানায় কোনও অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here