রেষারেষিতে দুর্ঘটনায় যুবকের মৃত্যু, তিনটি বাসে আগুন, রণক্ষেত্র খিদিরপুর, পুলিশের লাঠিচার্জ

সৌভিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা, ১০ জানুয়ারি: ক্রমাগত রেষারেষি করে যাচ্ছিল তিনটি বাস। শুক্রবার দুপুরে খিদিরপুরের রিমাউন্ট রোডে রাস্তা পেরোতে গিয়ে এই তিনটি বাসের মাঝখানে পড়ে মর্মান্তিক ভাবে মৃত্যু হল অরুণ ভার্মা নামে এক যুবকের। আর তার জেরেই উত্তেজিত হয়ে উঠল জনতা। পরপর আগুন ধরিয়ে দিল তিনটি বাসে।

ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বিশাল পুলিশবাহিনী। উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। পালটা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট ছোঁড়েন বিক্ষোভকারীরা। তাতে জখম হয়েছেন বেশ কয়েকজন পুলিশকর্মী।

পুলিশ সূত্রে খবর, শুক্রবার বেলা ১ টা নাগাদ খিদিরপুরের রিমাউন্ট রোড ১২সি, ১২সিএ/১/এ এবং ২৫৯ বাস একসঙ্গে রেষারেষি করতে করতে যাচ্ছিল।এদের মধ্যেই বেপরোয়া গতিতে আসা একটি বাস সজোরে ওই যুবককে ধাক্কা মারলে তিনি ছিটকে পড়েন। তারপর তাঁর মাথার ওপর দিয়ে বাসের চাকা চলে যায়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ওই যুবকের।

চোখের সামনে মর্মান্তিকভাবে ওই যুবককে মারা যেতে দেখে স্থানীয় মানুষরা উত্তেজিত হয়ে পড়েন। এরপরই রিমাউন্ট রোডে ১২সি, ১২সিএ/১/এ এবং ২৫৯ রুটের তিনটি বাসে আগুন জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। দেহ ঘিরে বিক্ষোভ দেখানো শুরু হয়।

খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বিশাল পুলিশবাহিনী। উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। পালটা পুলিশকে লক্ষ্য করে উত্তেজিত জনতা ইট ছুড়তে থাকে। ইটের ঘায়ে জখম হন বেশ কয়েকজন পুলিশ কর্মী। তবে শেষ পর্যন্ত পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here