কাজ হারানো যুবকরা নাম লেখাচ্ছে চোরাচালানে, চাপে বিএসএফ

নীল বনিক, আমাদের ভারত, কলকাতা, ২৭ জুলাই: কাজ হারানো যুবকরা চোরাচালানে নামায় চিন্তায় বিএসএফ। পাচারকারিরা নদিয়ার বাংলাদেশ সীমান্তে বেকার যুবকদের ব্যবহার করছে। করোনার সময়ে ২৫০ টাকা দিলেই বেকার যুবকরা নাম লেখাচ্ছেন চোরাচালানের কাজে। নদিয়ার কৃষ্ণনগর সেক্টরে ৩৪ কিলোমিটার এলাকায় কোনও কাঁটাতারের বেড়া নেই। সেই সুযোগটাই নিতে চাইছে চোরাচালানকারিরা। তবে তাদের ধরতে সক্রিয় বিএসএফ। ইতিমধ্যেই কৃষ্ণগঞ্জ, হাঁসখালি, চাপড়ায় বিএসএফকে সতর্ক করেছে তাদের ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ।

বিএসএফের দক্ষিণবঙ্গের ফ্রন্টিয়ারের ডিআইজি এসএস গুলারিয়া বলেন, চোরাচালানের চেষ্টা বাড়ছে। আমরা সতর্ক রয়েছি। লোকবল অনেকটাই বৃদ্ধি করা হয়েছে। সমস্ত সেক্টরগুলিকে সতর্ক করা হয়েছে। কিন্তু গ্রামের যুবকরা যদি চোরাচালানে যুক্ত হয়ে পড়ে তাহলে তা চিন্তার। করোনার সময় সীমান্তবর্তী গ্রামগুলির যুবকরা সিংহভাগ ধরা পড়েছে। সোনা, গরু সহ ওষুধ পাচার করতে গিয়ে। তাদের পাচারের ধরন দেখেও বোঝা যায় এরা এই কাকে খুব একটা পোক্ত নয়। বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আনা হয়েছে বলে জানান তিনি।

নদিয়া জেলার করিমপুর ১ ও ২। তেহট্ট ১, চাপড়া, কৃষ্ণগঞ্জ, হাঁসখালি, রানাঘাট -২ ব্লকে সীমান্ত রয়েছে। প্রতিটি জায়গায় বেকার যুবকরা চোরাচালানের কাজে নাম লেখালে আগামী দিনে তা প্রশাসনের কাছে চাপের হবে বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here