ত্রাণের কাজে তৃণমূলকে টেক্কা দিয়ে ব্যারাকপুরে দাপাচ্ছেন বিজেপি যুব মোর্চার নেতারা

নীল বনিক, আমাদের ভারত, কলকাতা, ৮ মে: ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলে ত্রাণের কাজে তৃণমূলকে টেক্কা বিজেপি যুব মোর্চার। ব্যারাকপুর লোকসভা জুড়ে সাধারণ মানুষের সঙ্গে দলীয় কর্মীদের সাহায্য করছেন বিজেপি যুব মোর্চার কর্মীরা। লকডাউনে সাধারণ মানুষের মুখে অন্ন তুলে দিতে ব্যারাকপুরে কমিনিটি কিচেন তৈরি করা হয়েছে। যুবমোর্চার তরফে প্রতিদিন এক হাজার মানুষের মুখে অন্ন তুলে দেওয়া হচ্ছে। যুব মোর্চার ব্যারাকপুরের সভাপতি সুপ্রিয় ঘোষের নেতৃত্বে এই কমিউনিটি কিচেন প্রতিদিন চলছে। নৈহাটিতে যুবমোর্চার সম্পাদক সূর্যচৌধুরীর নেতৃত্বে চলছে কমিনিটি কিচেন। সেখানেও গরিব মানুষরা প্রতিদিন খাবার পাচ্ছেন।

দলের জাতীয় পরিষদের সদস্য মুকুল রায়ের খাসতালুক হালিশহরে আবার চলছে সংঘের কমিউনিটি কিচেন। সেখানেই দুপুরে কয়েকশো মানুষ পাতপেড়ে ভাত খাচ্ছেন। শ্যামনগর, কাঁচরাপাড়া সব জায়গাতেই বিজেপি ও তাদের শাখা সংগঠনগুলির কমিউনিটি কিচেন রমরমিয়ে চলছে। আমডাঙা বিধানসভায় যুবমোর্চার রাজ্য সাধারণ সম্পাদক তাপস ঘোষের নেতৃত্বে চলছে ত্রাণের কাজ। সাধারণ মানুষ ছাড়াও দলের গরিব সদস্যদের বিশেষ ভাবে সাহায্য করেছেন তিনি। কয়েকদিনের মধ্যে যুবমোর্চার সাধারণ সম্পাদক তাপস ঘোষের নেতৃত্বে আবারও দলের গরিব নিষ্ঠাবান কর্মীদের ডাল, মশলা, তেল, সোয়াবিন সহ একমাসের খাদ্যদ্রব্য তুলে দেওয়া হবে।

যদিও এব্যাপারে তাপস ঘোষের বক্তব্য, ত্রাণের কাজে সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে আমি কথা বলবো না। দল সহ সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোটা আমাদের কর্তব্য। ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চল সহ গোটা রাজ্যের যুবমোর্চার কর্মীরা সেই কাজ করে চলেছেন। অসময়ে মানুষের পাশে যুবমোর্চা রয়েছে। তাতে রাজ্যের শাসক দলের মতো দলবাজি করা হবে না। যুবমোর্চার কাছে সবাই মানুষ। গরিব মানুষের মধ্যে রাজ্যের কোথাও ভাগাভাগি করতে দেওয়া হবে না বলে জানান তাপস ঘোষ।

প্রসঙ্গত, ত্রাণের কাজে কয়েকদিন আগে আমডাঙায় অর্জুন সিংকে বাধা দেয় আমডাঙা থানার পুলিশ। অর্জুন সিংকে আটকাতে কিছুটা সমর্থ হলেও দলের যুবমোর্চার কর্মীরা প্রতিদিন ত্রাণের কাজে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন গোটা ব্যারাকপুর লোকসভা জুড়ে। যদিও ভাটপাড়া সহ গোটা ব্যারাকপুরেও অর্জুন সিংয়ের অনুগামীরা ত্রাণের কাজ প্রতিদিন করছেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here