বিএসএফ-কে অপমান! অপর্না সেনকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে বলে আইনি চিঠি

আমাদের ভারত, ১৮ নভেম্বর:
বিএসএফ নিয়ে মন্তব্যের জেরে অভিনেত্রী পরিচালক অপর্ণা সেনকে আইনি চিঠি পাঠালেন বিজেপি নেতা অনির্বাণ গাঙ্গুলির আইনজীবী পৃথ্বীজয় দাস। রাজ্যের সীমান্ত এলাকায় বিএসএফের এক্তিয়ার বৃদ্ধি নিয়ে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর বিরুদ্ধে বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন তিনি। তার মন্তব্যের জেরে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মানহানি হয়েছে বলে অভিযোগ। তারই প্রতিবাদে অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সীমান্ত এলাকায় সম্প্রতি বিএসএফের এক্তিয়ার বৃদ্ধি করেছে। এরই প্রতিবাদে সরব হয়েছেন অপর্ণা সেন। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, সীমান্তরক্ষী বাহিনীর বিরুদ্ধে তিনি, “ধর্ষক” ও “খুনি” শব্দ প্রয়োগ করেছেন। এই সমস্ত মন্তব্যের প্রতিবাদ করেই অপর্ণা সেনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে বৃহস্পতিবার।

মামলাকারী দাবি করেছেন, কেন্দ্রীয় বাহিনীকে অসম্মান করেছেন অপর্ণা সেন। সাত দিনের মধ্যে প্রকাশ্যে তাকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। অন্যদিকে অপর্ণা সেন বলেছেন, সেনা শাসন জারির চেষ্টা করছে কেন্দ্র সরকার। সেনাকে যতটা ক্ষমতা দেওয়ার কথা তার থেকে বেশি ক্ষমতা দেওয়া হচ্ছে।

অপর্ণা সেনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। অপর্ণা সেনকে তিনি “ভাতাজীবী” বলে কটাক্ষ করেছেন। যদিও এই বিষয়ে মন্তব্য করেননি অপর্ণা সেন। বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, “নিজের জীবন দিয়ে যারা দেশ রক্ষা করে, সেই বিএসএফ_এর উপর একমাত্র anti-national–রাই প্রশ্নচিহ্ন তুলতে পারে। আর এক্ষেত্রে আবার চোরের সাক্ষী মাতাল হলো তাদের পোষা কিছু “pre-paid” বুদ্ধিজীবী। “Proud of our jawans”।

সম্প্রতি সীমান্তে বিএসএফের এক্তিয়ার বাড়িয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। ১৫ কিলোমিটার থেকে বাড়িয়ে ৫০ কিলোমিটার করা হয়েছে। এর বিরোধিতা করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নরেন্দ্র মোদীকে আগেই চিঠি লিখেছেন। কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে মঙ্গলবার রাজ্য বিধানসভায় প্রস্তাব পেশ করে রাজ্যের শাসক দল। প্রস্তাব নিয়ে বেশ কিছুক্ষণ আলোচনা হয়। শাসক-বিরোধী তরজায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বিধানসভা। শেষে ভোটাভুটিতে প্রস্তাব পাস হয়ে যায়।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here